অনলাইন ব্যাংকিংব্যাংকিং

সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম

সরকারী এবং সেই সাথে বাণিজ্যিক, এমন একটি জনপ্রিয় ব্যাংক সোনালী ব্যাংক লিমিটেড। সারা দেশে প্রায় ১২০৮ টি শাখা নিয়ে এর বিস্তৃতি। অনলাইন এবং অফলাইন সহ সব ধরণের ব্যাংকিং সেবা এবং দেশের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে কাজ করছে সোনালী ব্যাংক লিমিটেড। আজকে আমরা জানবো  সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম এবং তাদের প্রদত্ত সেবা নিয়ে বিস্তারিত।

সূচিপত্রঃ

সোনালী ব্যাংক সেবাসমূহ

গ্রাহকদের চাহিদার ওপর ভিত্তি করে বিভিন্ন ধরণের হিসাব ও সেবা চালু রেখেছে সোনালী ব্যাংক লিমিটেড। সম্মাণিত গ্রাহকগণ রবিবার থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ৪ টা পর্যন্ত আর্থিক লেনদেন সম্পন্ন করতে পারবেন। এছাড়াও শাখা সমূহে গ্রাহকের যেকোনো জিজ্ঞাসা বা সমস্যা সমাধানের রয়েছে একটি হেল্প ডেস্ক। এখন জেনে নেয়া যাক সোনালী ব্যাংক লিমিটেড প্রদত্ত সেবাসমূহ:

১: আমানত হিসাব

২: ঋণ প্রদান

৩: সরকারী লেনদেন

৪: ফরেন রেমিট্যান্স ম্যানেজমেন্ট

৫: এস এম এস ব্যাংকিং।

৬: সোনালী সেবা।

৭: এটিএম কার্যক্রম ও অন্যান্য।

সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

১: আবেদনকারীর এনআইডি কার্ডের কপি; যদি তা না থাকে তবে জন্ম-নিবন্ধন, পাসপোর্ট বা ড্রাইভিং লাইসেন্সের ফটোকপি। 

২: আবেদনকারীর দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি।

৩: আবেদনকারীর তিন মাসের মধ্যে আসা ইউটিলিটি বিলের কপি। যারা জানেন না তাদের জন্য বলে রাখি ইউটিলিটি বিল হলো আপনার বর্তমান ঠিকানার বিদ্যুৎ, গ্যাস বা পানির বিলের কপি। 

৪: আবেদনকারী যাকে নমিনি করতে চায় তার জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি এবং দুই কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি।

সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার ফরম

আপনারা অনেকেই ব্যাংকে যাবার আগে একাউন্ট ফরমটি দেখে নিতে চান। তাদের জন্য এখানে একটি ফরমের ছবি এবং সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার ফরম এর ( pdf ) টি দেয়া হলো। পাঠকের বোঝার সুবিধার্থে বলে রাখি এই ফরম টির প্রথমেই “হিসাব শিরোনাম” বলে একটি অপশন আছে, সেখানে আবেদনকারী নিজের নাম লিখবেন, আপনার একাউন্টটি আপনি যে নামে করতে চান তাই হিসাব শিরোনাম। 
সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার ফরম- ১সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার ফরম- ২

ব্যাংক একাউন্ট খোলার ফরম pdf ব্যাক্তিক

ব্যাংক একাউন্ট খোলার ফরম pdf প্রাতিষ্ঠানিক

সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম

সেভিংস একাউন্ট

সাধারণত ব্যাক্তিগত ব্যবহারের জন্য সেভিংস বা সঞ্চয়ী হিসাব সবচেয়ে বেশী জনপ্রিয়। গ্রাহকরা তাদের ইচ্ছানুযায়ী টাকা জমা রাখেন এবং নির্দিষ্ট পরিমাণ সুদ পান। এক বা একাধিক ব্যাক্তি মিলে যৌথ ভাবেও সঞ্চয়ী হিসাব খোলা যায়। এছাড়াও সেভিংস একাউন্টে এক মাসে কতো টাকা লেনদেন করা যাবে তা ব্যাংক থেকেই নির্ধারণ করে দেয়া হয়।

সোনালী ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট খোলার নিয়ম খুবই সহজ; প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে আপনার নিকটস্থ যেকোনো সোনালি ব্যাংকের একটি শাখায় যান, এরপর “হিসাব খোলার আবেদন ফরম” নামে একটি ফরম সংগ্রহ এবং পূরণ করুন। এরপর সেটি দায়িত্বরত কর্মকর্তার নিকট জমা দিন। 

সেভিংস একাউন্ট এর সুবিধা

  • এক ব্রাঞ্চ থেকে অন্য ব্রাঞ্চে টাকা ট্রান্সফার করতে পারেবন।
  • অন্য যেকোনো দেশ থেকে দ্রুত রেমিটেন্স আনতে পারবেন।
  • বিনামূল্যে চেক বই পাবেন।
  • সোনালী ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট মুনাফার পরিমাণ ৩.০০%

কারেন্ট একাউন্ট

কারেন্ট একাউন্ট বা চলতি হিসাব মূলত ব্যবসায়িক লেনদেনের জন্য ব্যবহার করা হয়। এ ধরনের একাউন্টে দৈনিক একাধিক বার টাকা লেনদেন করা যায়। নিয়মিত ব্যবহৃত হয় বলে কারেন্ট অ্যাকাউন্টের লেনদেনে কোনো সীমা নির্ধারণ করা হয়না।

কারেন্ট একাউন্ট এর সুবিধা

  • দৈনিক একাধিক লেনদেন করা যায়।
  • কারেন্ট একাউন্টে সুদ ধরা হয় না।
  • নিয়মিত লেনদেন এর জন্য এ ধরণের একাউন্ট উপযোগী।
  • লাভজনক-অলাভজনক যেকোনো ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের জন্য চলতি হিসাব উপযুক্ত।

উপরে বর্ণিত সকল প্রয়োজনীয় কাগজপত্র এবং ব্যবসায়ের ট্যাক্স আইডেন্টিফিকেশন নম্বর TIN এর কপি নিয়ে নিকটস্থ সোনালী ব্যাংকের শাখায় যান। ব্যাংক কর্মকর্তাগণ আপনাকে একটি ফরম দিবেন সেটা পূরণ করুন এবং জমা দিন। জমা দেয়ার কিছুক্ষনের মধ্যেই আপনার একাউন্টটি খোলা হয়ে যাবে বা লেনদেন করার জন্য প্রস্তুত হয়ে যাবে। 

অনলাইনে সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম

সোনালী ব্যাংক অনলাইন একাউন্ট খোলা এবং গ্রাহকদের প্রয়োজনীয় সব পরিষেবা দেয়ার জন্য সোনালী ই-সেবা নামে একটি মোবাইল এপ্লিকেশন লঞ্চ করেছে সোনালী ব্যাংক। এই অ্যাপটির মাধ্যমে আপনি ঘরে বসে কিভাবে অনলাইনে একটি একাউন্ট খুলতে পারেন:

ধাপ ১: অ্যাপ ইন্সটল করুন 

গুগল প্লে-স্টোর থেকে সোনালী ই-সেবা (Sonali eSheba) নামের অ্যাপটি ডাউনলোড এবং ইন্সটল করুন।

ধাপ ২ঃ অ্যাপ চালু করুন 

অ্যাপটি খোলার পর আপনি “ব্যাংক একাউন্ট খুলুন” “Open Bank A/C” নামে একটি অপশন পাবেন সেখানে ক্লিক করুন।

সোনালী ব্যাংকে অনলাইনে একাউন্ট খোলার নিয়ম। ধাপঃ ২

ধাপ ৩ঃ মোবাইল নম্বর দিন 

এই ধাপে আপনার মোবাইল নম্বরটি দিন। নম্বরটি আপনারই কি না তা যাচাই করার জন্য তারা একটি OTP বা (One Time Password) পাঠাবে। আপনার ফোনে যে OTP টি আসবে সেটি অ্যাপে প্রদান করুন।

সোনালী ব্যাংকে অনলাইনে একাউন্ট খোলার নিয়ম। ধাপঃ ৩

ধাপ ৪ঃ ছবি ও জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর প্রদান করুন 

এবার আপনার ফোনের সামনের ক্যামেরাতে আপনার একটি সেলফি নিন। এরপর ক্রমান্বয়ে আপনার জন্মতারিখ দিন এবং জাতীয় পরিচয়পত্রের ১৭ সংখ্যার যে নম্বরটি আছে সেটি দিন। জাতীয় পরিচয়পত্র না থাকলে জন্ম সনদের নম্বর প্রদান করেও আপনি একাউন্ট খুলতে পারবেন।

সোনালী ব্যাংকে অনলাইনে একাউন্ট খোলার নিয়ম। ধাপঃ ৪

ধাপ ৫ঃ বর্তমান ঠিকানা প্রদান করুন 

এরপর আপনার বর্তমান ঠিকানা দিন। যেমন গ্রাম, পোস্ট অফিস, জেলা, উপজেলা। অধিকাংশ সময় আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য অনুসারে এই তথ্যগুলো স্বয়ংক্রিয় ভাবেই চলে আসে। তারপরেও সব তথ্য সঠিক আছে কিনা তা মিলিয়ে নিন।

সোনালী ব্যাংকে অনলাইনে একাউন্ট খোলার নিয়ম। ধাপঃ ৫

ধাপ ৬ঃ জাতীয় পরিচয়পত্রের ছবি প্রদান করুন 

আবার ক্যামেরা আইকনে ক্লিক করে আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের সামনের ছবি তুলুন।

সোনালী ব্যাংকে অনলাইনে একাউন্ট খোলার নিয়ম। ধাপঃ ৬

এবার পেছনের অংশের ছবি তুলুন। ছবির লেখাগুলো অবশ্যই ষ্পষ্ট হতে হবে।

সোনালী ব্যাংকে অনলাইনে একাউন্ট খোলার নিয়ম। ধাপঃ ৬.১

ধাপ ৭ঃ শাখা ও অ্যাকাউন্টের ধরন নির্বাচন করুন 

এবার আপনি ফরম পূরণ করতে যে ঠিকানা ব্যবহার করেছেন, সেই ঠিকানার নিকটস্থ শাখাটি নির্ধারণ করুন। এরপর একাউন্ট টাইপ তথা ধরন নির্বাচন করুন এবং আপনার পেশা দিন। 

সোনালী ব্যাংকে অনলাইনে একাউন্ট খোলার নিয়ম। ধাপঃ ৭

ধাপ ৮ঃ নমিনীর তথ্য প্রদান

স্ক্রল করে একটু নিচের দিকে গেলেই দেখতে পাবেন নমীনির তথ্য চাওয়া হয়েছে। নমীনির নাম এবং তার সাথে আপনার সম্পর্ক নির্বাচন করুন। এরপর “Create Account” নামে একটি অপশন পাবেন তাতে ক্লিক করলেই আপনার একিউন্টটি সফল ভাবে খোলা হয়ে যাবে।

সোনালী ব্যাংকে অনলাইনে একাউন্ট খোলার নিয়ম। ধাপঃ ৮

ধাপ ৯ঃ একাউন্ট নিশ্চিতকরণ 

আপনার একাউন্টটি সফল ভাবে খোলা হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত হতে আপনার মোবাইলের মেসেজ চেক করুন। সেখানে একটি একাউন্ট নম্বর আসবে সেটি সংরক্ষণ করে রাখুন। একাউন্টটি সঠিকভাবে ব্যবহার করতে চাইলে একাউন্ট খোলার তিন মাসের মধ্যে নিকটস্থ শাখায় যান এবং প্রয়োজনীয় কিছু স্বাক্ষর ও তথ্যাদি পূরণ করে, আপনার ইচ্ছানুযায়ী টাকা জমা দিয়ে আসুন। ব্যাংকিং ভাষায় একে KYC বলে। মনে রাখবেন, তিন মাসের মধ্যে আপনি ব্যাংকে না গেলে আপনার অনলাইন একাউন্টটি বন্ধ হয়ে যেতে পারে।

ধাপ ১০ঃ শাখায় আবেদন জমা দিন

সরাসরি একাউন্ট খুলতে হলে আপনাকে যেমন আবেদন ফরম পূরন করতে হয়, অনলাইনেও আপনি এখন তেমনি একটি আবেদন ফরম তৈরী করলেন। এখন আপনাকে এই আবেদন ফরমটি প্রিন্ট করে যে শাখায় একাউন্টটি খুলেছেন সেই শাখায় জমা দিতে হবে। 

আপনি আপনার ফোনের ফাইল ম্যানেজার বা স্টোরেজে প্রবেশ করুন। Sonali Sheba নামে একটি ফোল্ডার খুজে বের করুন এবং তাতে প্রবেশ করুন। এখানে আপনার ছবি, জাতীয় পরিচয়পত্রের ছবি এবং PDF ফাইল আকারে আবেনপত্রটি থাকবে। এই PDF ফাইলটি আপনাকে প্রিন্ট আউট করে জমা দিতে হবে।

সোনালী ব্যাংকের একাউন্ট চার্জ

সোনালী ব্যাংকে বিভিন্ন একাউন্ট পরিচালনার জন্য একাউন্টে টাকার পরিমানের ওপর ভিত্তি করে একেক পরিমাণ চার্জ হয়ে থাকে। যেমন একাউন্ট মেইনট্যানেন্স ফি, হিসাব বন্ধকরণ চার্জ, হিসাব স্থানান্তরের ফি ইত্যাদি। সোনালী ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট চার্জ এবং সোনালী ব্যাংক চলতি হিসাবের চার্জ এক হবে না। তাহলে চলুন জেনে নেয়া যাক কোন একাউন্টের জন্য কি পরিমান চার্জ আপনাকে দিতে হবে। 

১। একাউন্ট মেইনট্যানেন্স ফি

হিসাবের নাম  বিস্তারিত বিবরণ চার্জ
ক) সঞ্চয়ী হিসাব ৫,০০০-২,৫০,০০০ টাকা বা তার উর্দ্ধে ১০০-৩০০ টাকা
খ) চলতি হিসাব যেকোনো পরিমাণ টাকা  ৫০০ টাকা

২। হিসাব বন্ধকরণ চার্জ

হিসাবের নাম  বিস্তারিত বিবরণ চার্জ
ক) সঞ্চয়ী হিসাব বন্ধকরণ ২০০ টাকা
খ) চলতি হিসাব বন্ধকরণ ৩০০ টাকা

সোনালী ব্যাংকের সুদের হার

সোনালী ব্যাংকে টাকা আমানত রাখার ক্ষেত্রে এক ধরনের ইন্টারেস্ট রেট পাওয়া যায় এবং ঋণ গ্রহণ করলে এক ধরনের ইন্টারেস্ট রেট প্রদান করতে হয়। তাহলে এবার জেনে নেয়া যাক সোনালী ব্যাংক সুদের হার

১। আমানতের ওপর সুদ

সঞ্চয়ী হিসাব ৩%
ফিক্সড ডিপোজিট ৫.৫০-৬.১৭%

২। ঋণের ওপর সুদ

 

ঋণ ও অগ্রিম খাত ৯.০০%

সোনালী ব্যাংকের একাউন্ট ব্যালান্স চেক করার নিয়ম 

সোনালী ব্যাংকে আপনার একাউন্ট খোলার পর আপনি তিনভাবে ব্যাংক একাউন্ট চেক করতে পারেন। 

১। সরাসরি ব্যাংকে গিয়ে ব্যাংকের কর্মচারীদের নিকট থেকে

২। এসএমএস এর মাধ্যমে।

৩। এপস এর মাধ্যমে।

এসএমএস এর মাধ্যমে সোনালী ব্যাংক একাউন্টের ব্যালান্স চেক করার নিয়ম

একটি বিষয় মনে রাখবেন, যে নম্বর থেকে আপনি এস এম এস টি পাঠাবেন সেই নম্বরটি অবশ্যই সোনালী ব্যাংক কর্তৃক ভ্যারিফাইড হতে হবে। অর্থাৎ একাউন্ট তৈরীর সময় যে ফোন নম্বরটি ব্যবহার করেছেন সেই নম্বর থেকেই আপনাকে এসএমএস করতে হবে।

ধাপ ১

প্রথমেই আপনার ফোনের মেসেজ অপশনে চলে যান এবং টাইপ করুন SBL এরপর একটি স্পেস দিন এবং টাইপ করুন BAL; যেমন: SBL <space> BAL

ধাপ ২

এরপর এই এসএম এস টি পাঠিয়ে দিন 26969 এই নম্বরে। ফিরতি এসএমএস এর মাধ্যমে আপনাকে একাউন্টের ব্যালেন্স জানিয়ে দেয়া হবে। 

অ্যাপ এর মাধ্যমে সোনালী ব্যাংক একাউন্টের ব্যালেন্স চেক করার নিয়ম

সোনালী ব্যাংকের একটি এপ “সোনালী ই-ওয়ালেট” এর মাধ্যমে আপনি সহজেই একাউন্ট ব্যালেন্স চেক করতে পারেন। তবে এর আগে আপনি এপটি ডাউনলোড এবং ইন্সটল করে আপনার একাউন্টের সাথে যুক্ত করে নিন। এপ এর ভেতরে আপনি একটি অপশন পাবেন “Transaction” নামে এরপর চলে যান “Bank Balance” নামক অপশনটিতে, ঠিক বিকাশ এপের মতো এখানে ক্লিক করলেই আপনি আপনার একাউন্ট ব্যালেন্স দেখতে পারবেন।

শেষ কথা

সরকারী ব্যাংক গুলোর মধ্যে সোনালী ব্যাংক সাধারণ মানুষের মধ্যে অনেক জনপ্রিয়। প্রিয় পাঠক আপনিও যদি ঠিক করে ফেলেন সোনালী ব্যাংকে একটি একাউন্ট খুলবেন, তাহলে আশা করি আপনি এখন সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে সব জানেন। তাই আর দেরী না করে আপনার সুবিধা অনুসারে সরাসরি বা অনলাইনে সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খুলে ফেলুন। 

অনবরত জিজ্ঞাসিত প্রশ্নাবলী

১। সোনালী ব্যাংকে সর্বনিম্ন কত টাকা রাখা যায়?

সোনালী ব্যাংক একাউন্টে আপনি সর্বনিম্ন ১০০০ টাকা রাখতে পারবেন।

২। সোনালী ব্যাংক কি সরকারি ব্যাংক?

হ্যাঁ। সোনালী ব্যাংক একটি সরকারী ব্যাংক।

৩। সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খুলতে কত টাকা লাগে?

সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খুলতে আলাদা করে কোনো টাকা লাগে না। তবে একাউন্ট খোলার সময় সর্বনিম্ন ১০০০ টাকা জমা রাখলে তবেই একাউন্ট খোলার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়।

রিলেটেড আর্টিকেল গুলো

Back to top button