নগদমোবাইল ব্যাংকিং

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং, যেকোনো লেনদেন হবে নিমিষেই

মোবাইল ব্যাংকিং (Mobile banking) আমাদের কাছে বর্তমানে খুবই পরিচিত একটি শব্দ। টাকা লেনদেনের ক্ষেত্রে এখন বাংলাদেশের সবচাইতে প্রচলিত মাধ্যম হচ্ছে মোবাইল ব্যাংকিং। দূরের কারো কাছে প্রয়োজনে টাকা পাঠানো, বিভিন্ন বিল পরিশোধ, অনলাইন কেনাকাটাসহ আরো অনেক নিত্যপ্রয়োজনীয় কাজ সহজ করে তুলেছে মোবাইল ব্যাংকিং সেবাসমূহ। বাংলাদেশে ২০০৯ সালে মোবাইল ব্যাংকিং এর ব্যবহার প্রথম শুরু হয়। এরপর সময়ের ব্যবধানে বেশ কিছু ব্যাংক মোবাইল ব্যাংকিং এর সেবা নিয়ে আসে জনসাধারণের জন্য। সে হিসাবে বাংলাদেশে তুলনামূলকভাবে বেশ নতুন একটি মোবাইল ব্যাংকিং সেবা হচ্ছে নগদ। কিন্তু তাদের মোবাইল ব্যাংকিং সেবায় সংযুক্ত করা বিভিন্ন অনন্য সুবিধা, কম খরচ ও ভালো মার্কেটিং পলিসি, বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন বোনাস প্রদানসহ আরো কিছু কারণে তারা খুব অল্প সময়েই বেশ ভালো পরিচিতি লাভ করেছে। আজকে এখানে নগদ মোবাইল ব্যাংকিং ও নগদ একাউন্ট সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করছি।

সূচিপত্রঃ

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং এর সূচনা

বাংলাদেশ ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের সাথে সংযুক্ত বাংলাদেশ পোস্ট অফিসের তৈরি মোবাইল ব্যাংকিং সেবা হচ্ছে নগদ। এটি পরিচালনা করে থার্ড ওয়েভ টেকনোলজিস লিমিটেড (TWTL) নামক একটি কোম্পানি। দেশের সাধারণ জনগনকে ব্যাংকিং সেবার সর্বোচ্চ সুবিধা মোবাইলের মাধ্যমে দিয়ে তাদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নের লক্ষ্যে নগদ যাত্রা শুরু করে। নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা মূলত বাংলাদেশ পোস্ট অফিসের পোস্টাল ক্যাশ কার্ড এবং ইলেক্ট্রনিক মানি ট্রান্সফার সিস্টেম (EMTS) এর উন্নত সংস্করণ। ২০১৮ সালের ১১ই নভেম্বর নগদের কার্যক্রম শুরু করা হয়। এবং এর পরবর্তী বছর, অর্থাৎ ২০১৯ সালের ২৬শে মার্চ, স্বাধীনতার ৪৮ তম বর্ষপূর্তিতে জনসাধারণের জন্য এটি উন্মুক্ত করে দেয়া হয়। নগদ তার ব্যবহারকারীদের জন্য আনা বেশ চমৎকার কিছু সেবা, দেশের সর্বনিম্ন ক্যাশ আউট চার্জ সহ বেশ কিছু সুবিধার কারণে ২০২১ সালে এসে দেশের মোবাইল ব্যাংকিং গুলো‘র মধ্যে অন্যতম সেরা মোবাইল ব্যাংকিং সেবা হিসেবে নিজের নাম তুলে ধরেছে।

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং এর সুবিধা

নগদ তার ব্যবহারকারীদের জন্য আনা বেশ চমৎকার কিছু সেবা, দেশের সর্বনিম্ন ক্যাশ আউট চার্জ সহ বেশ কিছু সুবিধার কারণে ২০২১ সালে এসে দেশের অন্যতম সেরা মোবাইল ব্যাংকিং সেবা হিসেবে নিজের নাম তুলে ধরেছে। আপনি আপনার বাড়ির পাশেই নগদ এর উদ্যোক্তা খুঁজে পাবেন। ফলে ক্যাশ আউট, ক্যাশ ইন সহ আরো অনেক কাজ করতে পারবেন খুব সহজেই। নগদ অ্যাপের ডিজাইন ব্যবহারকারীদের সুবিধার কথা মাথায় রেখে অত্যন্ত সরল রাখা হয়েছে। ফলে যে কেউ নগদ অ্যাপটি কোন ভোগান্তি ছাড়াই ব্যবহার করতে পারবে। নগদ অ্যাপ অল্প কিছুক্ষণ অব্যবহৃত থাকলেই লগ আউট হয়ে যায়। ফলে নতুন করে লগ ইন করা ছাড়া কেউ ইচ্ছা করলেও আপনার একাউন্টে প্রবেশ করতে পারবে না। নগদ আপনাকে দিচ্ছে অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং সেবাগুলোর তুলনায় সর্বোচ্চ মুনাফা এর অফার এবং আপনি চাইলে এই মুনাফা গ্রহণ বন্ধ করে দিতে পারেন। এমনকি আপনি চাইলে সম্পূর্ণ ইসলামিক ব্যাংকিং সেবাও নিতে পারবেন নগদ ব্যবহার করে। নগদ প্রতিনিয়তই বিভিন্ন সুপরিচিত দোকানে নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ব্যবহার করে পেমেন্টের ক্ষেত্রে অফার প্রদান করে থাকে। নগদ অ্যাপ ব্যবহার করে নোটিফিকেশন অপশন থেকে আপনি সহজেই এসব অফার পেতে পারেন, যা অনেক ক্ষেত্রেই আপনার অর্থ সাশ্রয়ে সাহায্য করবে। নগদ ব্যবহার করে বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস সহ আরো অনেক কিছুর বিল দিতে পারবেন আপনি ঘরে বসে সহজেই। নগদ ব্যবহার করে আপনি আপনার আয় ব্যয়ের হিসাবও রাখতে পারবেন। সব মিলিয়ে নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা তার ব্যবহারকারীদের জন্য সর্বোচ্চ সুবিধা নিয়ে এসেছে। যা দ্রুত জনপ্রিয়তার দিক দিয়ে অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং সেবাগুলোকেও ছাড়িয়ে যেতে সাহায্য করছে।

নগদ একাউন্ট দেখার নিয়ম

নগদ একাউন্ট দেখা সহ নগদের অন্যান্য প্রায় সকল কাজ করার জন্য দুটি পদ্ধতি রয়েছেঃ

  1. নগদ একাউন্ট দেখার জন্য আপনি কোড বা ইউএসএসডি ব্যবহার করে করতে পারেন। যেকোনো মোবাইল থেকে *১৬৭# কোডটি ডায়াল করলেই ব্যবহার করতে পারবেন নগদের সকল সেবা।
  2. যেকোনো এনড্রয়েড (Android) বা আইওএস (IOS) ডিভাইসে ‘Nagad’ অ্যাপটি ইন্সটল করেও নগদ ব্যবহার করতে পারেন। এজন্য এন্ড্রয়েড এর ক্ষেত্রে প্লে-স্টোর থেকে ও আইওএস এর ক্ষেত্রে অ্যাপল স্টোর থেকে নগদ অ্যাপ ডাউনলোড করে নিন।

মূলত ব্যবহারকারীদের সুবিধা দিতে ও প্রায় সকল কাজ সহজ করার জন্যই নগদ অ্যাপ তৈরী করা হয়েছে। নগদ অ্যাপ ব্যবহার করে আপনি বেশ কিছু অসাধারণ অফার ও বেশ কিছু ক্ষেত্রে কম চার্জ উপভোগ করতে পারবেন। 

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং এর সেবাসমূহ

মোবাইল ব্যাংকিং এর সকল ধরণের সেবা সাশ্রয়ী ও নিরাপদ ভাবে “নগদ” প্রদান করে থাকে। অন্যান্য সকল মোবাইল ব্যাংকিং সেবার মতই নগদ ব্যবহার করে আপনি সেন্ড মানি (Send money), ক্যাশ আউট (Cash out), মোবাইল রিচার্জ (Mobile recharge), অ্যাড মানি (Add money), মার্চেন্ট পে (Merchant pay), বিল পে (Bill pay) সহ আরো অনেক অতিরিক্ত সুবিধা ভোগ করতে পারবেন। এখানে নগদ এর সেবাগুলোর ব্যাপারে বিস্তারিত আলোচনা করছি।

নগদ সেন্ড মানি

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সেবার মাধ্যমে আপনি দুই ভাবে আপনার একাউন্ট থেকে অন্য একটি নগদ একাউন্টে টাকা পাঠাতে পারেন।

ইউএসএসডির মাধ্যমে নগদে সেন্ড মানিঃ

  • *১৬৭# ডায়াল করুন
  • ২ নম্বর অপশন (Send Money) নির্ধারণ করুন
  • যে নগদ একাউন্টে টাকা পাঠাতে চান, সেটির একাউন্ট নম্বর প্রবেশ করান।
  • যত টাকা পাঠাতে চাচ্ছেন তার পরিমাণ লিখুন।
  • যেকোনো একটি শব্দ রেফারেন্স হিসাবে লিখুন।
  • পিন নম্বর দিন।
  • নিশ্চিতকরণ ম্যাসেজ দেখে টাকা পাঠানো হয়েছে তা নিশ্চিত হোন।

অ্যাপের মাধ্যমে নগদে সেন্ড মানিঃ

নগদ অ্যাপ থেকে সেন্ড মানি করার নিয়ম | send money from nagad app

নগদ অ্যাপের সাহায্য এই টাকা পাঠানোর কাজটিই আরো সহজে করা যায়। অ্যাপ ব্যবহার করে টাকা পাঠানোর পদ্ধতি হলোঃ

  • নগদ অ্যাপ খুলে আপনার একাউন্টের পিন দিয়ে লগ ইন করে নিন।
  • “Send Money” অপশনটি নির্বাচন করুন।
  • যে একাউন্টে টাকা পাঠাতে চান সেটির ১১ অংকের একাউন্ট নম্বরটি প্রবেশ করান। আপনি চাইলে নগদ অ্যাপ ব্যবহার করে আপনার মোবাইল ফোনে থাকা কন্টাক্ট এর তালিকা থেকেও কোনো নম্বর নির্বাচন করতে পারেন।
  • টাকার পরিমাণ  লিখুন। নগদ অ্যাপে আপনাকে টাকার পরিমাণ  লেখার জায়গার নিচেই ব্যবহারযোগ্য ব্যালেন্সের পরিমাণ টিও উল্লেখ করে দিবে।
  • রেফারেন্স হিসেবে যে কোনো একটি শব্দ লিখুন।
  • আপনার একাউন্টের পিন প্রদান করুন।
  • আপনার দেয়া সকল তথ্য পূনরায় পরীক্ষা করে সঠিক দেখলে নগদের আইকন এ ট্যাপ করে ধরে থাকুন।
  • নিশ্চিতকরন ম্যাসেজ দেখে টাকা পাঠানো নিশ্চিত করুন।

নগদ ক্যাশ আউট

অন্যান্য সকল মোবাইল ব্যাংকিং সেবার মত নগদ একাউন্টের ক্যাশ আউটের জন্যও আপনাকে নিকটস্থ নগদ উদ্যোক্তা পয়েন্টে যেতে হবে। নগদ থেকে টাকা উত্তোলনের জন্য আপনি নগদ অ্যাপ বা ইউএসএসডি উভয়ই ব্যবহার করতে পারবেন। ইউএসএসডি ব্যবহার করে ক্যাশ আউট করলে ক্যাশ আউট চার্জ হিসেবে ৳১২.৯৯+ভ্যাট প্রযোজ্য হবে। যা দেশের অধিকাংশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবার তুলনায় বেশ কম। আর নগদ অ্যাপ ব্যবহার করে টাকা উত্তোলনের ক্ষেত্রে এই খরচ নেমে আসবে ৳৯.৯৯+ভ্যাট এ, যা দেশের সবচাইতে কম ক্যাশ আউট চার্জ। এজেন্টের মাধ্যমে দুইভাবেই ক্যাশ আউট এর পদ্ধতি নিচে বর্ণনা করা হলো।

ইউএসএসডির সাহায্যে নগদে ক্যাশ আউটঃ

  • *১৬৭# ডায়াল করুন।
  • অপশন ১, “Cash out” নির্বাচন করুন।
  • নগদ উদ্যোক্তার একাউন্ট নম্বরটি প্রবেশ করান।
  • যত টাকা উত্তোলন করতে চান তার সংখ্যাটি লিখুন।
  • আপনার পিন কোড প্রবেশ করান
  • নিশ্চিতকরণ ম্যাসেজ পেয়ে ট্রানজিকশন শেষ করুন।
  • উত্তোলনকৃত টাকা নগদ উদ্যোক্তার কাছ থেকে গ্রহণ করুন।

অ্যাপের সাহায্যে নগদে ক্যাশ আউটঃ 

নগদ অ্যাপ থেকে ক্যাশ আউট | cash out from nagad app

সহজে ও কম খরচে টাকা উত্তোলনের জন্য নগদ অ্যাপ ব্যবহার করতে পারেন। নগদ অ্যাপের মাধ্যমে ক্যাশ আউটের পদ্ধতি হচ্ছে

  • নগদ অ্যাপে প্রবেশ করে আপনার পিন দিয়ে লগ ইন করুন।
  • ক্যাশ আউট অপশনটি নির্বাচন করুন।
  • নগদ উদ্যোক্তার একাউন্ট নম্বরটি প্রবেশ করান। নগদ অ্যাপ ব্যবহার করে আপনি চাইলে নগদ উদ্যোক্তার কিউআর (QR) কোডও স্ক্যান করতে পারেন। এক্ষেত্রে ক্যাশ আউট অপশনটিতে প্রবেশ করলে উদ্যোক্তা একাউন্ট নম্বরের নিচেই কিউআর (QR) কোড স্ক্যান করার অপশন পাবেন। সেটি নির্বাচন করে আপনার মোবাইলের ক্যামেরা উদ্যোক্তার কিউআর (QR) কোড বরাবর রাখলেই স্ক্যান হয়ে যাবে। 
  • যত টাকা উত্তোলন করবেন তার পরিমাণ  নির্ধারণ করে সে সংখ্যাটি লিখুন।
  • আপনার নগদ একাউন্টের পিন নম্বর দিন। 
  • নিশ্চিতকরণ ম্যাসেজ পেয়ে ট্রানজিকশন শেষ করুন।
  • উত্তোলনকৃত টাকা নগদ উদ্যোক্তা থেকে গ্রহণ করুন।

নগদ মোবাইল রিচার্জ

অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং সেবার মত নগদও মোবাইল রিচার্জ করার সুবিধা প্রদান করে থাকে। আপনি অ্যাপ ও ইউএসএসডি উভয়ের মাধ্যমেই এই সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন।

ইউএসএসডির মাধ্যমে নগদে মোবাইল রিচার্জঃ

  • *১৬৭# ডায়াল করুন।
  • অপশন ৩, মোবাইল রিচার্জ নির্বাচন করুন।
  • যে সিমে রিচার্জ করবেন তার অপারেটর নির্ধারণ করুন।
  • ঐ সিম কার্ডটি প্রি-পেইড নাকি পোস্ট পেইড তা নির্ধারণ করুন।
  • যে ফোন নম্বরে রিচার্জ করবেন সেটি প্রবেশ করান।
  • কত টাকা রিচার্জ করবেন তার পরিমাণ  লিখুন।
  • আপনার নগদ একাউন্টের পিন প্রবেশ করান।
  • নিশ্চিতকরণ ম্যাসেজ পেয়ে মোবাইল রিচার্জ নিশ্চিত করুন।

অ্যাপের মাধ্যমে নগদে মোবাইল রিচার্জঃ

নগদ অ্যাপের মাধ্যমে মোবাইল রিচার্জ | mobile recharge from nagad app

  • নগদ অ্যাপে প্রবেশ করে আপনার পিন কোড দিয়ে লগ ইন করুন।
  • মোবাইল রিচার্জ নির্বাচন করুন।
  • প্রাপকের মোবাইল নম্বরটি প্রবেশ করান। এছাড়াও আপনি চাইলে নগদ অ্যাপ ব্যবহার করে আপনার কন্টাক্ট এর তালিকা থেকেও কোনো নম্বর নির্বাচন করতে পারেন।
  • প্রাপকের মোবাইল অপারেটর নির্বাচন করুন।
  • কত টাকা রিচার্জ করবেন তার পরিমাণ  লিখুন। রিচার্জ করার সুবিধার জন্য অ্যাপটিতে ৫০, ১০০, ২০০, ৫০০ টাকার অপশন রাখা আছে। চাইলে আপনি অপশন গুলোতে ক্লিক করেও রিচার্জের পরিমাণ  নির্ধারণ করতে পারবেন। এছাড়াও নগদ অ্যাপ ব্যবহার করে আপনি ভয়েস প্যাক, ইন্টারনেট প্যাক, বান্ডল প্যাক পছন্দ মতো নির্বাচন করে কিনতে পারবেন।
  • যে সিমে রিচার্জ করবেন সেটি প্রি-পেইড নাকি পোস্ট-পেইড তা নির্বাচন করুন।
  • আপনার নগদ একাউন্টের পিন প্রবেশ করান।
  • নিশ্চিতকরণ ম্যাসেজ পেয়ে মোবাইল রিচার্জ নিশ্চিত করুন।

নগদ অ্যাড মানি

আপনার যদি নগদ একাউন্ট থাকে, তবে আপনি চাইলেই একাউন্টটিতে আপনার ব্যাংক একাউন্ট থেকে বা ক্রেডিট কার্ড থেকে টাকা আনতে পারবেন। এই সুবিধার মাধ্যমে ভিসা কার্ড ও মাস্টার কার্ড থেকে টাকা আনতে পারার ব্যাপারটিও এক্ষেত্রে অনেক সুবিধা তৈরি করেছে। আপনি ভিসা বা মাস্টার কার্ড থেকে প্রতিদিন সর্বোচ্চ ৫ বার ৩০,০০০ টাকা পর্যন্ত অ্যাড মানি করতে পারবেন। প্রতি মাসে পারবেন সর্বোচ্চ ২৫ বার ও সর্বমোট ২,০০,০০০ টাকা পর্যন্ত। নগদ এর সাহায্যে অ্যাড মানি করতে কোনো প্রকার চার্জ কাটা হয় না। বিভিন্ন বিপদের সময় এই সুবিধাটি অনেক কাজে দেয়। কিন্তু দুঃখজনক ভাবে নগদ একাউন্টে অ্যাড মানি করার বিষয়টি এখনো নগদ অ্যাপের মাঝে সীমাবদ্ধ। ইউএসএসডি ব্যবহার করে এই সুবিধা ভোগ করার পদ্ধতি এখনো নগদ আনে নি। এখানে নগদ অ্যাপের মাধ্যমে অ্যাড মানি করার পদ্ধতি বর্ণনা করছি।নগদ মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে অ্যাড মানি | add money from nagad mobile app

  • নগদ অ্যাপে প্রবেশ করে অ্যাড মানি নির্বাচন করুন।
  • কার্ড টু নগদ ট্যাপ করে ভিসা কার্ড বা মাস্টার কার্ড এর যেটি থেকে আপনি টাকা আনবেন সেটি নির্বাচন করুন।
  • যে নম্বরে টাকা আনবেন সেটি লিখুন।
  • টাকার পরিমাণ দিন।
  • ভিসা কার্ড বা মাস্টার কার্ডের যেটি থেকে টাকা আনবেন সেটির নম্বর, মেয়াদ ও সিভিএন (CVN) নম্বর দিন। আপনি চাইলে পরবর্তীতে একই তথ্য সহজে ব্যবহারের জন্য নগদ অ্যাপে তথ্যগুলো সংরক্ষণ করে রাখতে পারেন। 
  • আপনার মোবাইল নম্বরে আসা ওটিপি (OTP) কোড দিন।
  • কনফার্মেশন ম্যাসেজ পেয়ে লেনদেন শেষ করুন।

এক্ষেত্রে উল্লেখ্য বিষয় হচ্ছে, যদি ব্যবহৃত কার্ডটির ই-কমার্স পেমেন্ট অপশনটি চালু না থাকে তাহলে কার্ড থেকে টাকা আনতে সমস্যা হতে পারে। সে কারণে এই সমস্যা দূর করতে যে কার্ডটি ব্যবহার করা হবে সেই কার্ড ইস্যুকারী ব্যাংক থেকে ই-কমার্স পেমেন্ট অপশনটি চালু করে নিতে হবে।

নগদ মার্চেন্ট পে

মোবাইল ব্যাংকিং সেবার অন্যতম প্রধান একটি সুবিধা হচ্ছে মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে দোকানে কেনাকাটার পর তার মূল্য পরিশোধ করা। নগদও এ ব্যাপারে পিছিয়ে নেই। নগদ একাউন্টের মাধ্যমে আপনি চাইলে সহজেই অনেক সুপার শপ, ফার্মেসি, ডিপার্টমেন্টাল স্টোর, রেস্টুরেন্ট, ই-কমার্স সাইট সহ আরো অনেক জায়গায় পণ্য কেনার পর তার মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন। এই কাজটি আপনি ইউএসএসডি ও নগদ অ্যাপ উভয়ের মাধ্যমেই করতে পারবেন। এখানে নগদ একাউন্টের সাহায্যে মার্চেন্ট পে এর পদ্ধতি বর্ণনা করছি।

ইউএসএসডির মাধ্যমে নগদে মার্চেন্ট পেঃ

  • *১৬৭# ডায়াল করুন।
  • অপশন ৪, পেমেন্ট (Payment) নির্বাচন করুন।
  • যে দোকানের মূল্য পরিশোধ করবেন তার মার্চেন্ট একাউন্ট নম্বর দিন।
  • যত টাকা দিতে হবে তা উল্লেখ করুন।
  • রেফারেন্স হিসেবে একটি শব্দ লিখুন।
  • আপনার নগদ একাউন্টের পিন প্রবেশ করান। 
  • নিশ্চিতকরণ ম্যাসেজ পেয়ে মূল্য পরিশোধ নিশ্চিত করুন।

অ্যাপের সাহায্যে নগদে মার্চেন্ট পেঃ

নগদ মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে মার্চেন্ট পে | merchant pay from nagad mobile app

  • নগদ অ্যাপে প্রবেশ করে আপনার পিন দিয়ে লগ ইন করুন।
  • মার্চেন্ট পে অপশনটি নির্বাচন করুন।
  • যে দোকানের মূল্য পরিশোধ করবেন তার মার্চেন্ট একাউন্ট নম্বর দিন। নগদ অ্যাপ ব্যবহার করে আপনি চাইলে যে দোকানের মূল্য পরিশোধ করবেন, সে দোকানের মার্চেন্ট একাউন্টের কিউআর (QR) কোডও স্ক্যান করতে পারেন।
  • যত টাকা দিতে হবে তা উল্লেখ করুন।
  • রেফারেন্স হিসেবে একটি শব্দ লিখুন।
  • আপনার নগদ একাউন্টের পিন প্রবেশ করান। 
  • নগদের আইকনটিতে ট্যাপ করে ধরে রাখুন।
  • নিশ্চিতকরণ ম্যাসেজ পেয়ে মূল্য পরিশোধ নিশ্চিত করুন।

নগদ বিল পে

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সেবার অন্যতম একটি সুবিধা হচ্ছে বিল পে করা। অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং সেবা‘র মত নগদ ও বিল পে করার সুবিধা রেখেছে। ফলে এর সাহায্যে আপনাকে বিল পরিশোধ করার জন্য লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হবে না আর। ফলে আপনি ঘরে বসেই নিরাপদে বিভিন্ন বিষয়ের বিল প্রদান করতে পারবেন। এক্ষেত্রে বরং নগদ অন্যদের চাইতে বেশ কিছু অতিরিক্ত প্রতিষ্ঠানের বিল পরিশোধের সুবিধা রেখেছে। নগদের সাহায্যে আপনি বিদ্যুৎ, গ্যাস, পানি, ইন্টারনেট, টিভি ও টেলিফোন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ব্যাংক ও এফআই, ইন্সুরেন্স, কোভিড-১৯ নমুনা সংগ্রহ, এমএফআই, বেশ কিছু রাইড শেয়ারিং অ্যাপ, ই-পর্চা সহ আরো বেশ কিছু বিষয়ের বিল পরিশোধ করতে পারবেন। এই কাজে আপনি চাইলে নগদ অ্যাপ ও ইউএসএসডি উভয়ই ব্যবহার করতে পারবেন। নগদ ব্যবহার করে বিল দেয়ার নিয়ম নিম্নরুপ।

ইউএসএসডির সাহায্যে নগদে বিল পেঃ 

  • *১৬৭# ডায়াল করুন।
  • অপশন ৫, বিল পে (Bill pay) নির্বাচন করুন।
  • কোন সেবার বিল প্রদান করবেন তা নির্ধারণ করুন।
  • আপনি কোন সংগঠনে বিল প্রদান করবেন তা নির্ধারণ করুন।
  • একাউন্ট নম্বর ও বিল সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় তথ্য দিন।
  • বিলের পরিমাণ  লিখুন।
  • আপনার নগদ একাউন্টের পিন প্রবেশ করে বিল দেওয়ার কাজ সমাপ্ত করুন।

অ্যাপের মাধ্যমে নগদে বিল পেঃ

নগদ মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে বিল পে | bill pay from nagad mobile app

  • নগদ অ্যাপে প্রবেশ করে আপনার একাউন্টের পিন দিয়ে লগ ইন করুন।
  • বিল পে অপশনটি নির্বাচন করুন।
  • বিল গ্রহণকারী সংগঠনটি নির্বাচন করুন। এই কাজে আপনি চাইলে উপরের সার্চ বারে সংগঠনের নাম বা সংগঠনের নম্বর আংশিক বা সম্পূর্ণ লিখে সার্চ করতে পারেন। এতে করে সংগঠনটি খুঁজে পাওয়া সহজ হবে। এছাড়াও কোন সেবার বিল দিতে চাচ্ছেন তা নির্ধারণ করে নিলেও সংগঠনের খুঁজে পাওয়ার কাজ সহজ হয়ে যাবে।
  • একাউন্ট নম্বর ও বিল সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় তথ্য দিন।
  • বিলের পরিমাণ  লিখুন।
  • আপনার নগদ একাউন্টের পিন প্রবেশ করিয়ে বিল দেওয়ার কাজ সমাপ্ত করুন।

নগদ ডোনেশন

মোবাইল ব্যাংকিং সেবার সাথে সাথে দান করার সুযোগও বিস্তৃত হয়েছে। অনেক দাতব্য ও অন্যান্য বিখ্যাত প্রতিষ্ঠান এখন মোবাইল ব্যাংকিং সেবার সাহায্যে ডোনেশন নিয়ে থাকে। তাই নগদও মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে ডোনেশন দেয়ার সুবিধা তৈরি করেছে। দুঃখজনক ভাবে সুবিধাটি ইউএসএসডি ব্যবহার করে করার সুযোগ এখনো নগদ তৈরি করেনি। কিন্তু আপনি চাইলে নগদ অ্যাপ ব্যবহার করে খুব সহজেই সেসব প্রতিষ্ঠানে দান করতে পারবেন। নগদ অ্যাপ ব্যবহার করে ডোনেশন দেয়ার পদ্ধতি হচ্ছে।নগদ মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে ডোনেশন

  • নগদ অ্যাপে প্রবেশ করে আপনার একাউন্টের পিন দিয়ে লগ ইন করুন।
  • ডোনেশন অপশনটি নির্বাচন করুন।
  • মার্চেন্ট তালিকা থেকে ডোনেশন প্রাপক প্রতিষ্ঠানের নাম নির্বাচন করুন। আপনি চাইলে সার্চ বক্সে প্রতিষ্ঠানের নাম বা তাদের মোবাইল নম্বর লিখে সার্চ দিয়ে সহজে প্রতিষ্ঠানটি খুঁজে পেতে পারেন।
  • ডোনেশনের পরিমাণ  নির্ধারণ করুন।
  • রেফারেন্স হিসেবে একটি শব্দ লিখুন।
  • আপনার নগদ একাউন্টের পিন প্রবেশ করান।
  • নগদ এর আইকনে ট্যাপ করে ধরে রাখুন।
  • নিশ্চিতকরণ ম্যাসেজ পেয়ে ডোনেশন পৌছানো নিশ্চিত করুন।

নগদ একাউন্ট ব্যালেন্স চেক

নগদ একাউন্ট ব্যালেন্স চেক | account balance check from nagad mobile app

নিজের নগদ একাউন্টের ব্যালেন্স চেক করা খুবই সহজ একটি কাজ। আপনি নগদ অ্যাপ ব্যবহার করে মাত্র একটি ট্যাপের সাহায্যেই একাউন্টের ব্যালেন্স চেক করতে পারবেন। নগদ একাউন্টে লগ ইন করলেই দেখতে পাবেন ‘ব্যালেন্স জানতে ট্যাপ করুন’ অপশনটি। এখানে ট্যাপ করলেই আপনি আপনার নগদ একাউন্টের ব্যালেন্স দেখতে পাবেন। যদিও নগদ মোবাইল ব্যাংকিং এর ব্যালেন্স চেক এর নির্দিষ্ট কোড নেই, কিন্তু ইউএসএসডি ব্যবহার করে ব্যালেন্স চেক করতে পারবেন। ইউএসএসডি ব্যবহার করে ব্যালেন্স দেখতে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন।

  • *১৬৭# ডায়াল করুন।
  • অপশন ৭, “My nagad” নির্বাচন করুন।
  • অপশন ১, “Balance enquiry” নির্বাচন করুন।
  • আপনার নগদ একাউন্টের পিন কোড দিন।

এরপর আপনি আপনার নগদ একাউন্টের ব্যালেন্স দেখতে পাবেন।

নগদ এর অতিরিক্ত সুবিধা ও সেবা

উপরে উল্লিখিত নগদ এর মূল সেবাগুলো ছাড়াও নগদ ব্যবহার করে বেশ কিছু অনন্য সেবা উপভোগ করতে পারবেন। যদিও তার অনেকগুলোই শুধুমাত্র নগদ অ্যাপ ব্যবহার করেই করা যায়। কিন্তু সুবিধাগুলো আমাদের চলতি জীবনে অনেক কাজ সহজ করতে সাহায্য করবে।

আয়কর প্রদান

আপনি আপনার নগদ একাউন্টের সাহায্যে সহজেই আয়কর প্রদান করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনাকে আপনার নগদ একাউন্টে লগ ইন করে আয়কর অপশনটি নির্বাচন করতে হবে। এরপর পরবর্তী ধাপগুলি অনুসরণ করলে আপনি নগদের সাহায্যে আপনার আয়কর প্রদান করতে পারবেন। এই সুবিধাটি ইউএসএসডি ব্যবহার করে করা সম্ভব নয়।

খবর পাঠ

নগদ অ্যাপের সাহায্যে আপনি খবর পড়তে পারবেন সহজেই। এবং এই কাজে কোনো অতিরিক্ত চার্জ প্রযোজ্য হবে না। এতে প্রতিদিনের খবর যেকোনো জায়গায় বসেই আপনি নগদ অ্যাপ থেকে পড়তে পারবেন।

একাউন্টের লিমিট ও চার্জ দেখা

আমাদের হাজারো কাজের ভীড়ে মোবাইল ব্যাংকিং সেবার হিসাব ভুলে যাওয়াটা খুব একটা অস্বাভাবিক নয়। নগদ এজন্য নগদ অ্যাপে তার ব্যবহারকারীদের সুবিধার জন্য সহজেই লিমিট, চার্জ, সর্বনিম্ন ও সর্বোচ্চ অর্থ ও লেনদেন সীমা, দৈনিক ও মাসিক লেনদেন দেখার সুবিধা রেখেছে। নগদ অ্যাপে লগ ইন করে লিমিট ও চার্জ অপশনটিতে প্রবেশ করলেই আপনি এসমস্ত হিসাব ও সীমা সহজেই দেখতে পারবেন।

লেনদেনের তথ্য দেখা

নগদের আরেকটি বিশেষ সুবিধা হচ্ছে সকল লেনদেনের তথ্য যেকোনো সময় দেখতে পাওয়া। এটি আমাদের আর্থিক হিসাব রাখার দিকটি অনেক সহজ করে তুলবে। নগদের সাহায্যে কবে, কোন খাতে, কতটাকা ব্যয় করা হয়েছে, কোথা থেকে কতটাকা এসেছে সব সহজেই দেখা সম্ভব। সুবিধাটি ইউএসএসডি ও অ্যাপ উভয় থেকেই উপভোগ করা যাবে। অ্যাপের সাহায্যে করতে আপনার নগদ অ্যাপে লগ ইন করে অ্যাপের নিচের দিকের অপশন লেনদেন নির্বাচন করুন। এখানে আপনি সকল লেনদেন একসাথে আবার ক্যাশ ইন, ক্যাশ আউট আলাদা আলাদা ভাবেও দেখতে পারবেন। ইউএসএসডি এর সাহায্যে করতে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন।

  • *১৬৭# ডায়াল করুন।
  • অপশন ৭, “My nagad” নির্বাচন করুন।
  • অপশন ২, “Mini Statement” নির্বাচন করুন।
  • আপনার নগদ একাউন্টের পিন প্রবেশ করান।
  • এরপর এখানে আপনার নগদ একাউন্ট ব্যবহার করে করা লেনদেনের সকল তথ্য আপনাকে দেখানো হবে। 

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং মুনাফার হার

নগদ মোবাইল ব্যাংকিং মুনাফার হার (সর্বশেষ)
ক্রেডিট: নগদ মুনাফা

মুনাফার দিক থেকে নগদ অনেক বড় সুবিধা দিয়ে থাকে। নগদ ব্যবহার করে আপনি দেশের মোবাইল ব্যাংকিং সেবা গুলোর মাঝে সর্বোচ্চ সঞ্চয় হার উপভোগ করতে পারবেন। আপনার একাউন্টটি নগদ মুনাফা গ্রহীতা একাউন্ট হলে  আপনার একাউন্টে মাত্র ১০০০ টাকা বা তার বেশী থাকলেই আপনি প্রতি মাসে সেই জমানো টাকার উপর ইন্টারেস্ট পাবেন। আপনার একাউন্টে ৳১০০০-৳৫০০০ এর মাঝে থাকলে আপনি বাৎসরিক ৪% হারে মুনাফা পাবেন। এবং ৳৫০০০ বা এর বেশি আপনার একাউন্টে থাকলে বাৎসরিক ৬% হারে মুনাফা পাবেন। এক্ষেত্রে প্রতিদিনের মুনাফার হার হিসাব করে মাস শেষে মুনাফা থেকে ভ্যাটের পরিমাণ কেটে রেখে আপনার একাউন্টে মুনাফার টাকা যোগ করা হবে। এছাড়াও আপনি চাইলে মুনাফা গ্রহণ বন্ধ করতে পারেন। একাউন্ট খোলার সময়ই আপনাকে আপনি মুনাফা গ্রহীতা হতে চান কিনা তা জিজ্ঞাসা করা হবে। সেসময় মুনাফা না নেয়ার অপশন নির্বাচন করলে আপনার একাউন্টে মুনাফা যোগ করা হবে না। এছাড়াও পরবর্তীতে আপনি চাইলে নগদ কল সেন্টারে কল করে বা সরাসরি নগদ অ্যাপ থেকেও মুনাফা গ্রহণ বন্ধ করতে বা চালু করতে পারবেন। এছাড়াও আপনি নগদ অ্যাপ ব্যবহার করে আপনার একাউন্টটিকে ইসলামিক একাউন্টে রুপান্তরিত করতে পারবেন। মুনাফা চালু বা বন্ধ করতে নগদ অ্যাপে লগ ইন করে অ্যাপের নিচের দিকে থাকা অপশন আমার নগদ নির্বাচন করে ‘একাউন্টের ধরন’ ও ‘মুনাফা পেতে চাই’ অপশন দুটি ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়াও নগদ কল সেন্টার (১৬১৬৭) এ কল করেও এ কাজ গুলো করতে পারবেন।

নগদ হেল্পলাইন ও কাস্টমার কেয়ার

নগদ তার ব্যবহারকারীদের যেকোনো সমস্যায় সাহায্যের জন্য হেল্পলাইন ও কাস্টমার কেয়ার সার্ভিস তৈরী করেছে। যেকোনো প্রয়োজনে, যেকোনো সমস্যায় আপনি এখান থেকে সাহায্য পেতে পারেন। দিনের যেকোনো সময় ১৬১৬৭ অথবা ০৯৬ ০৯৬ ১৬১৬৭ নাম্বারে ডায়াল করে অথবা info@nagad.com.bd এই এড্রেসে ই-মেইল করে নগদের সাহায্য পেতে পারেন। এছাড়াও দেশের বিভিন্ন স্থানে নগদ এর কাস্টমার কেয়ার সেন্টার রয়েছে। প্রয়োজনে সেখানে গিয়েও আপনি আপনার সমস্যা সমাধান করতে পারবেন। কাস্টমার কেয়ারের ঠিকানা সমূহ নগদ অ্যাপের সাহায্যে সহজেই আপনি খুঁজে বের করতে পারবেন। আপনি প্রয়োজনে বনানীতে অবস্থিত নগদের হেড অফিসে যোগাযোগ করতে পারেন।

নগদ হেড অফিসের ঠিকানাঃ

ডেল্টা ডালিয়া টাওয়ার (লেভেল ১৩ এবং ১৪),

৩৬ কামাল আতাতুর্ক এভিনিউ, বনানী,

ঢাকা -১২১৩।

এছাড়াও নগদ ওয়েবসাইটে (nagad.com.bd) ভিজিট করে এদের সেবা সম্পর্কে আরো অনেক কিছু জানতে পারবেন।

শেষকথা

নগদ এর সেবা বেশ কয়েক বছর আগেই চালু হলেও বর্তমানে ২০২১ সালে এসে হঠাৎ করেই তারা বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এর কারণ হিসাবে বেশ কিছু অসাধারণ অফার, সর্বনিম্ন ক্যাশ আউট চার্জ, বিভিন্ন বিখ্যাত দোকানে নগদ ব্যবহার করে পেমেন্টে ছাড় ও প্রতিদ্বন্দ্বী কিছু প্রতিষ্ঠানের অদূরদর্শিতা তাদের জনপ্রিয় হয়ে উঠতে সাহায্য করেছে। নতুন অনেক গ্রাহক যুক্ত হওয়ায় অনেক ব্যবহারকারীই নগদ ও এর ব্যবহারবিধি সম্পর্কে পুরোপুরি জানেন না। তাদের উপরের লেখাটি সাহায্য করবে বলে আশা রাখছি

অনবরত জিজ্ঞাসিত প্রশ্নাবলী

অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং থেকে নগদে টাকা ট্রান্সফার করে কিভাবে?

উত্তরঃ অন্য মোবাইল ব্যাংকিং থেকে নগদে টাকা ট্রান্সফার করার কোনো পদ্ধতি এখনো চালু হয় নি। তবে অদূর ভবিষ্যতে এই পদ্ধতি চালু করার চিন্তাভাবনা করছে মোবাইল ব্যাংকিং কোম্পানি গুলো।

নগদ একাউন্টের পিন ভুলে গেলে কি করবো?

উত্তরঃ নগদ একাউন্টের পিন ভুলে গেলে নগদ হেল্পলাইন (১৬১৬৭) এ কল দিন। তাদের কাছে আপনার সমস্যাটি অর্থাৎ আপনি আপনার একাউন্টের পিন ভুলে গেছেন তা বলুন। এরপর তারা আপনার কাছে আপনার পরিচয় নিশ্চিত করতে আপনার একাউন্ট সম্পর্কিত বেশ কিছু প্রশ্নের উত্তর জানতে চাইতে পারে। সেগুলোর যথাযথ উত্তর দিয়ে আপনার একাউন্টের পিন রিসেট করে নিন। 

নিকটস্থ নগদ উদ্যোক্তা কিভাবে খুঁজে পাবো?

উত্তরঃ আপনি চাইলে নগদ অ্যাপ ব্যবহার করে ‘আমার নগদ’ অপশনে গিয়ে স্টোর সন্ধান এ প্রবেশ করে গুগল ম্যাপের সাহায্যে আপনার নিকটস্থ উদ্যোক্তা পয়েন্ট খুঁজে বের করতে পারবেন। 

নগদ কল সেন্টারে কখন ফোন দিতে পারবো?

উত্তরঃ আপনি সপ্তাহের ৭ দিন ও দিনের ২৪ ঘন্টার যেকোনো সময় নগদ কল সেন্টারে যেকোনো প্রয়োজনে ফোন করতে পারবেন। 

নগদের উল্লেখিত লেনদেনের লিমিট অতিক্রম হলে কি হবে?

উত্তরঃ নগদ একাউন্টের লেনদেনের লিমিট অতিক্রম হয়ে গেলে আপনি আপনার একাউন্টের লিমিট নবায়ন হওয়ার আগ পর্যন্ত লেনদেন করতে পারবেন না। এবং একবার ট্রানজিকশনে পাঠানোর সর্বোচ্চ লিমিট অতিক্রম করলে ট্রানজিকশন ব্যার্থ হয়েছে দেখানো হবে।

 

 

ছবি ও তথ্যসূত্রঃ নগদ

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button