খেলাধুলাস্বাস্থ্য

ব্যাডমিন্টন খেলার দারুন সব উপকারিতা

শীতের শুরু থেকেই ব্যাডমিন্টন খেলা নিয়ে আসে অন্যরকম এক আমেজ। গ্রাম-গঞ্জ, শহরতলির তরুণেরা গা গরমের জন্য ব্যাডমিন্টন খেলায় হৈ-হুল্লোড়ে মেতে উঠে। খেলাধুলা হিসেবে ব্যাডমিন্টন তুলনামূলকভাবে খুব সহজ। এটি খেলতে ব্যয়বহুল যন্ত্রপাতি এবং বিস্তৃত পরিসরের প্রয়োজন হয় না এবং পাশাপাশি এই খেলার রয়েছে স্বাস্থ্য উপকারিতাও। ব্যাডমিন্টন খেলার উপকারগুলো কেবল শরীরের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয় বরং আপনার মনকেও প্রভাবিত করে। আমাদের আজকের এই লেখায় ব্যাডমিন্টন খেলার তেমনি দারুণ সব স্বাস্থ্য উপকারিতা সম্পর্কে কিছু তথ্য উপস্থাপন করার চেষ্টা করছি।

সূচিপত্রঃ

ব্যাডমিন্টন খেলার ১৬টি স্বাস্থ্য উপকারিতা

শারীরিক স্বাস্থ্য উপকারিতা

মানবজীবনে স্বাস্থ্যই সবচেয়ে বড় সম্পদ। আপনার জীবনে প্রচুর টাকা পয়সা থাকা সত্বেও স্বাস্থ্যবান না হলে আপনার জীবন চরম নাটকীয়ভাবে অতিবাহিত হবে। শারীরিক স্বাস্থ্য আপনার সামগ্রিক স্বাস্থ্যের একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ এবং ব্যাডমিন্টন আপনাকে শারীরিকভাবে সুস্থ হতে সহায়তা করতে পারে। নিচে ব্যাডমিন্টন খেলার কয়েকটা শারীরিক উপকারিতা সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

১) পেশী টোনিং করে

পেশী টোনিং

ব্যাডমিন্টন খেললে পেশী দারুণভাবে টোনিং হয়। জিমনেশিয়ামে অনেক রকমের সরঞ্জাম থাকে, যেগুলো নিয়মিত ব্যবহারে আপনার পেশীকে টোন করতে সহায়তা করে। খেলা চলাকালীন হাতের রক্ত চলাচল এবং বিভিন্ন অঙ্গভঙ্গি বিশেষত বাট, হ্যামস্ট্রিংস, কোয়াডস এবং গ্লুটগুলো আপনার পেশীগুলোকে টোন করতে সহায়তা করে। তাছাড়া ব্যাডমিন্টন খেলায় পেশী বেশি নড়াচড়া করে এতে করে সহজেই মেদ কমাতে পারবেন।

২) নমনীয়তা বৃদ্ধি করে

ব্যাডমিন্টন একটি দ্রুত গতির খেলা হওয়ার কারণে নিজেকে কখনও দাঁড় করিয়ে রাখলে অস্বস্তিকর পরিস্থিতিতে পরতে হয়। এটি সময়ের সাথে সাথে আপনার শরীরের ভারসাম্য উন্নত করতে সহায়তা করবে। তাছাড়া, এটি আপনাকে আপনার নমনীয়তা উন্নত করতে সহায়তা করবে কারণ শাটল বা কর্ক ধরার জন্য এক সেকেন্ডেরও কম সময় পাবেন অর্থাৎ আপনি যতটা ভাবেন তার চেয়ে নিজেকে আরও প্রসারিত করতে হবে।

৩) পেশী ধৈর্য এবং শক্তি বৃদ্ধি করে

পেশী সহিষ্ণুতা আপনাকে ক্লান্ত না করে দীর্ঘ সময়ের জন্য শারীরিক কার্য সম্পাদন করতে সহায়তা করে। ব্যাডমিন্টন খেলার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উপকারিতা হ’ল এটি পেশীর সহনশীলতা এবং স্ট্যামিনা বৃদ্ধি করে। মাত্র ২০মিনিট বা তার বেশি সময় খেলার পর আমরা দম ছেড়ে দেই তবে নিয়মিত খেলতে থাকায় ২০ মিনিট ধীরে ধীরে সময়ের সাথে ১-২ঘন্টা পর্যন্ত প্রসারিত হতে পারে ।

৪) মেটাবলিজমের হার বৃদ্ধি করে

মেটাবোলিজমের হার বাড়ায়

ব্যাডমিন্টন অন্য যে কোনও খেলাধুলার মতো ঘাম ঝরিয়ে দেয় এবং শরীরের ক্যালরি পোড়াতে সাহায্য করে। এটি দেহের মধ্যে সৃষ্ট শক্তি ঘাটতি পূরণ করতে অক্সিজেনের চাহিদা বাড়িয়ে তোলে। এবং এটি রক্ত সঞ্চালন বাড়িয়ে দেয় এবং এর ফলস্বরূপ বিপাকের হারে অসাধারণ উন্নতি ঘটায়।

৫) ওজন কমায়

যে কোনও শারীরিক ক্রিয়াকলাপ বা অনুশীলনের জন্য শক্তির প্রয়োজন যা দেহে ক্যালরি হয়ে জমে থাকা চর্বি এবং শর্করাকে পুড়িয়ে দেহের মাধ্যমেই উৎপন্ন হয়। আপনি মাত্র ১ঘণ্টা খেলে প্রায় ৪০০-৫০০ ক্যালরি পোড়াতে পারবেন। এটি দেহের অভ্যন্তরে অতিরিক্ত ফ্যাটকে নির্মূল করে এবং ওজন হ্রাসে সহায়তা করে। তাছাড়া আপনি নিয়মিত ব্যাডমিন্টন খেললে মাসে মাসে ৪ কেজি ওজন কমাতে পারবেন।

৬) হৃৎপিণ্ড ভালো রাখে

স্বাস্থ্যকর হার্ট

খেলা হিসাবে ব্যাডমিন্টনের সবচেয়ে বড় উপকারিতা হলো এটি রক্ত সঞ্চালনকে আরও বেশি পরিমাণে উন্নত করে, যার ফলস্বরূপ এটি হৃৎপিণ্ডের পেশীগুলোর রক্তকে আরও বেশি পাম্প করার জন্য শক্তিশালী করে তোলে।
এটি ধমনী দেয়ালগুলোকে ব্লক এবং দেহে এইচডিএল এর মাত্রা বাড়িয়ে খারাপ কোলেস্টেরল কমায় যাতে করে আপনার হার্ট শক্তিশালী ও সবল থাকে।

৭) ফুসফুস ফাংশন উন্নত করে

দেহে রক্ত সঞ্চালন নিয়মিতভাবে ফুসফুস এবং হার্ট সমন্বয় করে। ব্যাডমিন্টন খেলার সময় যখন হার্টের পেশী শক্তিশালী হয় এবং রক্ত সঞ্চালন উন্নত হয় তখন এটি ফুসফুসের কার্যকারিতাও উন্নত করে, বিশেষত যাদের শ্বাস নিতে অসুবিধে হয়।

৮) হাড়ের ঘনত্ব এবং হাড়ের শক্তি উন্নত করে

ব্যাডমিন্টন খেলার আরেকটা উপকারিতা হল এটি হাড় গঠনের কোষগুলোর বৃদ্ধি প্রসার করে, যার ফলে হাড়ের ভাঙা বা অস্টিওপেনিয়ার ঘটনা কমে যায়।

৯) ডায়াবেটিসের প্রকোপ হ্রাস করে

ডায়াবেটিসের প্রকোপ হ্রাস করে

ব্যাডমিন্টন ডায়াবেটিস হ্রাস করে এমন কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই। তবে ব্যাডমিন্টনে পর্যাপ্ত শারীরিক ক্রিয়াকলাপ জড়িত থাকায় এটি রক্তে শর্করার মাত্রা হ্রাস করতে সহায়তা করে যা আপনার লিভার দ্বারা সুগারের সামগ্রিক উৎপাদন হ্রাস করে এবং এটি আপনার দেহে ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমায়। গবেষণা বলছে ব্যাডমিন্টন খেলে এমন ব্যক্তিদের ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কম।

১০) রেফ্লেক্সেস এবং মোটর সমন্বয় বৃদ্ধি করে

ব্যাডমিন্টনের পুরো খেলা পুরোপুরি নির্ভর করে যে আপনি কীভাবে আপনার সামনে দ্রুতবেগে আসা শাটলটি সনাক্ত করতে পারবেন এবং আপনার হাতে থাকা র‍্যাকেটটি দিয়ে শাটলের পেছনে আঘাত করবেন। সুতরাং ব্যাডমিন্টন খেলার উপকারিতা হলো এটি আপনার প্রতিবিম্বকে প্রচুর পরিমাণে বাড়িয়ে তোলে আপনার গতি এবং একই সাথে মোটর সমন্বয়কে উন্নত করে।

১১) ঘুমের উন্নতি করে

ব্যাডমিন্টন সামগ্রিক রক্ত সঞ্চালনের ব্যাপক উন্নতি ঘটায়, তবুও আপনাকে ক্লান্ত করে দেয় এবং রাতে আপনাকে ভা্লো একটি ঘুম উপহার দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে, যা আপনাকে সারাদিন তরতাজা থাকতে সহায়তা করে

মানসিক স্বাস্থ্য উপকারিতা

পেশী এবং অঙ্গ সামগ্রিক স্বাস্থ্যের একটি অংশ মাত্র। মানসিক স্বাস্থ্যও আপনাকে সুস্থতা দেবে। স্বাস্থ্যের এই দিকটি হতাশা, বিষণ্ণতার মতো মানসিক অসুস্থতার বিরুদ্ধে লড়াই করা এবং আপনার মনকে আরও সচল রাখার জন্য খেলাধুলা একটি ভালো প্রতিষেধক হিসাবে কাজ করে। আর শীতকালীন জনপ্রিয় খেলা ব্যাডমিন্টন অনুশীলনে রয়েছে বেশি কিছু মানসিক উপকারিতা।

১২) ফোকাস তৈরি এবং ঘনত্ব উন্নত করে

ব্যাডমিন্টন খেলায় খেলোয়াড়কে সজাগ এবং সর্বদা তাদের পায়ের আঙ্গুলের উপর নজর রাখতে হয়, যা ফোকাস উন্নত করতে সহায়তা করে, মস্তিষ্কের ক্রিয়াকলাপকে উদ্দীপিত করে এবং ঘনত্ব বাড়ায়।

১৩) প্রকৃতির সঙ্গে মিশে যাওয়া যায়

ব্যাডমিন্টন খেলতে যথেষ্ট পরিমাণ জায়গার প্রয়োজন হয়। ইনডোরে অনেক সময় খেলা সম্ভব হয় না। তাই খোলামেলা পরিবেশে খেলতে হয়। এতে করে প্রকৃতির সাথে, বাতাসের শুদ্ধ প্রবাহ এবং চারপাশের নির্মলতার সাথে মিশে মনে অনাবিল প্রশান্তি নেমে আসে।

১৪) উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে

উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রন করে

ব্যাডমিন্টন ভালো স্ট্রেস-বাস্টার হিসাবে কাজ করে-এর মানে হলো এটি আপনার উচ্চ রক্তচাপ প্রতিকার করে। অন্য যে কোনও খেলাধুলার মতো ব্যাডমিন্টন শারীরিকভাবে বেশি প্রেসারের খেলা হওয়ায় আপনার শরীরে উচ্চ পরিমাণে এন্ডারফিন নিঃসৃত হয়, যা স্বয়ংক্রিয়ভাবে ইতিবাচকতা বাড়ায় এবং উত্তেজনা থেকে মুক্তি দেয়।

১৫) মাইন্ড তীক্ষ্ণ করে এবং কৌশল নির্মাণ করে

ব্যাডমিন্টন খেলায় জয় বা পরাজয় নির্ভর করে আপনি আপনার প্রতিপক্ষের শট কতটা ভালোভাবে উপলব্ধি করতে সক্ষম তার উপর ভিত্তি করে। জয়ের জন্য আপনি শাটল বা ফেদারারটি কোথায় ফেলবেন, নিজেকে কীভাবে রক্ষা করবেন এবং স্বল্পতম সময়ে কীভাবে সর্বোচ্চ স্কোর করবেন তা সঠিকভাবে নির্ধারণ করতে সক্ষম হওয়া উচিত। এক মুহুর্তে এই জ্ঞান থাকা এবং সেই অনুযায়ী কাজ করতে সক্ষম হতে পারলে অবশেষে এই কৌশলগত খেলায় আপনি জয়ী হতে পারবেন।

সামাজিক স্বাস্থ্য উপকারিতা

স্বাস্থ্য শুধু শরীর ও মনের সাথে সংশ্লিষ্ট নয় । গবেষণা বলে মানুষের সাথে মেলামেশা করলে এবং কমিউনিটির অংশ হলে আপনার সামগ্রিক স্বাস্থ্যের উপরও ইতিবাচক প্রভাব পরে। এক্ষেত্রে ব্যাডমিন্টনের ভূমিকা অতুলনীয়।

১৬) সামাজিক দক্ষতা উন্নত করতে সহায়তা করে

ব্যাডমিন্টন একাকি খেলা যায় না। এছাড়াও, একই ব্যক্তির সাথে বার বার খেলে আপনি সহজেই বিরক্ত হয়ে যেতে পারেন। সুতরাং, আপনি প্রতিবারে নতুন এবং প্রতিযোগিতামূলক ব্যক্তিদের সাথে খেলছেন এবং দেখছেন যা আপনাকে আপনার সামাজিক দক্ষতা উন্নত করতে এবং এর পাশাপাশি আপনার সামাজিক বৃত্ত বাড়াতে সহায়তা করে। তাছাড়া আপনার সাথে খেলতে আসা নতুন লোকের বিভিন্নরকম অভিজ্ঞতা আপনাকে আরো মোটিভেটেড ও আরও ভালো সামাজিকায়নে সহায়তা করে।

শেষ কথা

উপরের লেখাটি থেকে আপনারা ব্যাডমিন্টন খেলার উপকারিতাগুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারলেন। ব্যাটমিন্টন প্রায় সবসময়ই খেলা গেলেও শীতকালই ব্যাটমিন্টন খেলার মোক্ষম সময়। শীতকালে গা গরম করার পাশাপাশি সুস্থ থাকতে ব্যাডমিন্টন খেলার বিকল্প নেই। তবে চলুন শীতকালে আমাদের শরীরে ইতিবাচক প্রভাব ফেলা ব্যাডমিন্টন খেলা চর্চা করার মাধ্যমে নিজের শরীর সুস্থ রাখার চেষ্টা করি।

 

নিয়মিত স্বাস্থ্য বিষয়ক টিপস পেতে চোখ রাখুন আমাদের ওয়েবসাইটে এবং ফেইসবুক পেইজে

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button