উপায়মোবাইল ব্যাংকিং

উপায় মোবাইল ব্যাংকিং এর আদ্যোপান্ত

বর্তমান পৃথিবীতে শুধু নগদ টাকা থাকলেই আর আগের মতো সকল সুবিধা ভোগ করা যায় না। আধুনিক পৃথিবীর আধুনিক নিয়ম অনুযায়ী এখন অনেক কেনাকাটাই সহজে করতে চাইলে নির্ভর করতে হয় অনলাইন জগতের ওপর। আর দিনে দিনে অনলাইন জগতের এক অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে উঠছে এমএফএস তথা মোবাইল ব্যাংকিং সেবা গুলো। বাংলাদেশও তার ব্যাতিক্রম নয়। আর বাংলাদেশী নাগরিকদের জন্যই চালু হয়েছে আরো একটি সম্পূর্ণ নতুন মোবাইল ব্যাংকিং সেবা। সেটি হলো উপায় মোবাইল ব্যাংকিং। আজকের লেখাটিতে বিস্তারিত থাকছে এই সেবাটিকে নিয়েই। 

সূচিপত্রঃ

উপায় মোবাইল ব্যাংকিং এর নবযাত্রা

বাংলাদেশের বাজারে উপায় (Upay) একটি সম্পূর্ণ নতুন মোবাইল ব্যাংকিং সেবা। ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক (UCB) এর সহকারী প্রতিষ্ঠান ইউনাইটেড ফিনটেক কোম্পানি লিমিটেড এর একটি অর্থনৈতিক সেবা এই উপায়। অর্থাৎ এটি মূলত ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক (UCB) এরই একটি সেবা। UCB পূর্বেও একটি সমগোত্রীয় সেবা তার গ্রাহকদের দিয়েছিলো। যার নাম ছিল ইউক্যাশ (UCash)। তবে বর্তমানে তাদের সেবা পেতে হলে ব্যবহার করতে হবে উপায়।

বেসরকারি খাতের অন্যতম বৃহৎ এই ব্যাংকটি ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ ভিশন দ্বারা চালিত হয়ে ২০২১ সালের ১৭ই মার্চ যাত্রা শুরু করে। অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং সেবা গুলোর মতো সাধারণ সেবা দেওয়ার পাশাপাশি উপায় এর রয়েছে কিছু বিশেষ দিক। যেমন, ট্রাফিক মামলার জরিমানা প্রদান, ভারতীয় ভিসা ফী প্রদান, ই-পর্চার বিল প্রদান সহ আরো নানা কিছু। এছাড়াও উপায় এর অ্যাপ লে আউটটিও বেশ সহজ ও সাবলীল। পূর্বের ইউ-পে এর তুলনায় উপায় একাউন্ট খোলার নিয়ম এখন আরও সহজ হওয়ায় তাদের গ্রাহকের পরিমান বেড়ে চলেছে অনেক দ্রুত।

চলুন জানা যাক উপায়  সম্পর্কে আরো কিছুটা বিস্তারিতঃ

উপায় অ্যাপ ও ইউএসএসডি (USSD)

উপায় নামক নবগঠিত এই সেবাটি বাংলাদেশের যেকোনো প্রান্তের মানুষ উপভোগ করতে পারবেন মোবাইল অ্যাপ অথবা ইউএসএসডি (USSD) এর মাধ্যমে। উপায় অ্যাপ নামাতে গুগল প্লে স্টোরে গিয়ে সার্চ করুন ‘upay’। এছাড়া যেকোনো মোবাইল থেকে ডায়াল করতে পারেন *২৬৮# নম্বরে।

গুগল প্লে ষ্টোরে উপায় মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাপ

উপায় মোবাইল ব্যাংকিং এর মূল সেবাসমূহ

উপায় অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং সেবা গুলোর মতই সেন্ড মানি (Send Money), মোবাইল রিচার্জ (Mobile Recharge), ক্যাশ আউট (Cash Out), মেক পেমেন্ট (Make Payment), পে বিল (Pay Bill),  অ্যাড মানি (Add Money) ইত্যাদি সেবা দিয়ে থাকে। তার পাশাপাশি রিকোয়েস্ট মানি (Request Money) ও ফান্ড ট্রান্সফার (Fund Transfer) নামক কিছু বিশেষ সেবা রয়েছে। নিচে উপায় এর মূল সেবা গুলো নিয়ে আলোচনা করা হল। 

উপায় সেন্ড মানি

অ্যাপের সাহায্যেঃ 

উপায় অ্যাপের সাহায্যে খুব সহজেই আপনি অন্যের একাউন্টে টাকা পাঠাতে পারবেন। টাকা পাঠাতে চাইলে অ্যাপের সেন্ড মানি অপশনে ট্যাপ করুন। অতঃপর কোন নাম্বারে টাকা পাঠাতে চান তা নির্ধারণ করে কত টাকা পাঠাবেন সেই অংকটি প্রবেশ করান। চাইলে অংকটির জন্য ক্যাশআউট চার্জও পাঠিয়ে দিতে পারেন। এরপর একটি রেফারেন্স যুক্ত করে নিজের পিনটি প্রবেশ করান। সব কিছু ঠিক থাকলে একটি স্লাইড করেই পাঠাতে পারবেন আপনার টাকা। নিচের চিত্র গুলোতে বিস্তারিত দেখানো হলঃ

উপায়ে মোবাইল অ্যাপ থেকে সেন্ড মানি করার ধাপসমূহঃ ১

উপায়ে মোবাইল অ্যাপ থেকে সেন্ড মানি করার ধাপসমূহঃ ২

ইউএসএসডির সাহায্যেঃ

১) *২৬৮# ডায়াল করুন। 

২) অপশন ১ নির্ধারণ করুন।

৩) ওয়ালেট/একাউন্ট নম্বর প্রবেশ করান।

৪) টাকার অংক প্রবেশ করান। 

৫) রেফারেন্স লিখুন।

৬) পিন প্রবেশ করিয়ে সেন্ড মানি নিশ্চিত করুন। 

উপায় মোবাইল রিচার্জ

অ্যাপের সাহায্যেঃ

উপায় অ্যাপের সাহায্যে আপনি যেকোনো মোবাইল নম্বরেই টাকা রিচার্জ করতে পারবেন। মোবাইল রিচার্জ অপশনে ট্যাপ করে প্রথমেই সিম কোম্পানি ঠিক করে দিতে হবে। এরপর ঠিক করতে হবে আপনি পোস্ট-পেইড, প্রি-পেইড নাকি স্কিটো গ্রাহক। নির্ধারণের পর টাকার অংক ঠিক করে পিনটি প্রবেশ করালেই সকল তথ্য দেখতে পাবেন। অতঃপর একটি স্লাইড এর মাধ্যমে নিশ্চিত করুন মোবাইল রিচার্জ। আপনাদের সুবিধার্থে নিচে পুরো প্রক্রিয়ার ছবি যুক্ত করা হলঃ 

উপায়-এ মোবাইল রিচার্জ করার ধাপসমুহঃ ১

উপায়-এ মোবাইল রিচার্জ করার ধাপসমুহঃ ২

ইউএসএসডির সাহায্যেঃ

১) *২৬৮# ডায়াল করুন।

২) অপশন ২ নির্ধারণ করুন।

৩) সিম অপারেটর নির্ধারণ করুন।

৪) প্রি-পেইড নাকি পোস্ট-পেইড তা নির্ধারণ করুন। 

৫) ফোন নম্বর প্রবেশ করান। 

৬) টাকার পরিমাণ নির্ধারণ করুন।

৭) পিন প্রবেশ করিয়ে মোবাইল রিচার্জ নিশ্চিত করুন। 

উপায় ক্যাশ আউট

উপায় এর একটি বিশেষ দিক হল এর দ্বিমুখী ক্যাশ আউট সুবিধা। অধিকাংশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা ক্যাশ আউটের জন্য পুরোপুরি এজেন্ট নির্ভর। কিন্তু ইউসিবি ব্যাংক তাদের এটিএম বুথ থেকেও উপায় এর টাকা উত্তোলণের সুযোগ রেখেছে। অর্থাৎ উপায় এর টাকা আপনি এজেন্ট ও এটিএম বুথ দুই মাধ্যমেই তুলতে পারবেন। 

এজেন্টের মাধ্যমে

দেশের মোবাইল ব্যাংকিং সেবাগুলোর মধ্যে কিছুটা কম ক্যাশ আউট চার্জ রাখছে উপায়। এজেন্টের মাধ্যমে ক্যাশ আউট করতে চাইলে সাধারণ ওয়ালেট থেকে ১.৪% হারে ক্যাশ আউট চার্জ প্রযোজ্য। অর্থাৎ হাজারে ১৪ টাকা। আশা করি আর কয়েক মাসের মধ্যেই প্রতিটি পাড়া মহল্লায় উপায় এর এজেন্ট দেখা যাবে। এজেন্টের মাধ্যমে অ্যাপ ও ইউএসএসডির সাহায্যে ক্যাশ আউটের পন্থা নিচে বর্ণনা করা হল। 

অ্যাপের সাহায্যে

প্রথমেই উপায় অ্যাপটি চালু করুন। ক্যাশ আউট অপশনে ট্যাপ করে এজেন্টের মোবাইল নম্বর প্রবেশ করান। সময় বাঁচাতে চাইলে এজেন্টের কিউআর কোডটিও স্ক্যান করে নিতে পারেন। এবার কত টাকা ক্যাশ আউট করতে চান সেই অংকটি প্রবেশ করান। সর্বনিম্ন ৫০ টাকা ও সর্বোচ্চ ২৫,০০০ টাকা ক্যাশ আউট করতে পারবেন। অতঃপর নিজের পিন নম্বরটি প্রবেশ করান এবং সকল তথ্য ঠিক থাকলে স্লাইড করে লেনদেন নিশ্চিত করুন। ক্যাশআউট সফল হলে এজেন্টের কাছ থেকে টাকা বুঝে নিন। বোঝার সুবিধার্থে নিচে পুরো প্রক্রিয়ার ছবি দেওয়া হলঃ

উপায়-এ এজেন্ট এর মাধ্যমে ক্যাশ আউট করার ধাপসমুহঃ ১

উপায়-এ এজেন্ট এর মাধ্যমে ক্যাশ আউট করার ধাপসমুহঃ ২

ইউএসএসডির সাহায্যে

১) *২৬৮# ডায়াল করুন।

২) অপশন ৪ নির্ধারণ করুন।

৩) এজেন্ট থেকে টাকা তুলতে ১ চাপুন।

৪) এজেন্টের নম্বরটি প্রবেশ করান। 

৫) টাকার পরিমাণ লিখুন।

৬) পিন প্রবেশ করিয়ে ক্যাশ আউট নিশ্চিত করুন। 

এটিএম বুথের মাধ্যমে

উপায় এর একটি অনন্য সেবা হল এটিএম বুথের সাহায্যে টাকা উঠানো। সবচেয়ে দারুণ ব্যাপার হল এটিএম এর ক্যাশ আউট চার্জ। এজেন্ট থেকে টাকা উঠানোর চার্জ যেখানে হাজারে ১৪ টাকা, সেখানে এটিএম বুথে চার্জ দিতে হবে হাজারে মাত্র ৭.৯৯ টাকা। তাই বড় আকারে ক্যাশ আউট করতে এটিএমই সুবিধাজনক। চলুন জানা যাক এটিএম বুথের মাধ্যমে টাকা উত্তোলণের প্রক্রিয়া।  

অ্যাপের সাহায্যেঃ 

স্বাভাবিক ভাবেই উপায় অ্যাপের ক্যাশ আউট সেকশনে ট্যাপ করুন। পরবর্তী ধাপে ‘From ATM’ নির্ধারণ করুন। এবার যত টাকা ক্যাশ আউট করতে চান সেই অংকটি প্রবেশ করান। অতঃপর নিজের পিন নম্বর দিন। পিন নম্বর দেওয়ার পরে আপনার ফোনে একটি ওটিপি (OTP) আসবে। এই ওটিপি ২০ মিনিট অবধি কার্যকরী থাকবে। ২০ মিনিটের মধ্যে নিকটস্থ এটিএম বুথ থেকে ওটিপির সাহায্যে টাকা উত্তোলণ করুন। যদি বুথ দূরে হয়ে থাকে তাহলে আগে বুথে পৌছে এরপরে ওটিপির জন্য আবেদন করুন। নিচে পুরো প্রক্রিয়া চিত্রের মাধ্যমে বর্ণিত হলঃ 

উপায়-এ এটিএম বুথ এর মাধ্যমে ক্যাশ আউট করার ধাপসমুহঃ ১

উপায়-এ এটিএম বুথ এর মাধ্যমে ক্যাশ আউট করার ধাপসমুহঃ ২

ইউএসএসডির সাহায্যেঃ

১) *২৬৮# ডায়ার করুন।

২) অপশন ৪ নির্ধারণ করুন।

৩) ২ চেপে এটিএম থেকে টাকা উঠাবেন তা নিশ্চিত করুন।

৪) টাকার অংক লিখুন।

৫) পিন দিয়ে লেনদেন নিশ্চিত করুন। 

উপায় মেক পেমেন্ট

দৈনন্দিন জীবনে অনেক ক্ষেত্রেই আমাদের হাতে নগদ টাকা থাকে না। বিব্রতকর অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে উপায় এর সাহায্যে সহজেই যেকোনো মার্চেন্ট একাউন্টে মেক পেমেন্ট অর্থাৎ মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন। অ্যাপ ও ইউএসএসডি দুটি প্রক্রিয়াই এক্ষেত্রে কার্যকরী।

অ্যাপের সাহায্যেঃ

উপায় অ্যাপ চালু করে মেক পেমেন্ট অপশনে ট্যাপ করুন। মার্চেন্ট মোবাইল নম্বরটি প্রবেশ করান অথবা কিউআর কোড স্ক্যান করে নিন। টাকার অংক প্রবেশ করিয়ে নিজের পিন নম্বরটি প্রবেশ করান। লেনদেনের সকল তথ্য সঠিক হলে স্লাইড করে লেনদেনটি নিশ্চিত করুন। 

উপায়-এ অ্যাপের সাহায্যে পেমেন্ট করার ধাপসমুহঃ ১

উপায়-এ অ্যাপের সাহায্যে পেমেন্ট করার ধাপসমুহঃ ২

ইউএসএসডির সাহায্যেঃ

১) *২৬৮# ডায়াল করুন।

২) অপশন ৩ নির্ধারণ করুন।

৩) মার্চেন্ট একাউন্ট নম্বর প্রবেশ করান। 

৪) টাকার অংক প্রবেশ করান।

৫) প্রয়োজনবোধে রেফারেন্স টেক্সট লিখুন।

৬) কাউন্টার নম্বর প্রবেশ করান। না চাইলে ‘ * ‘ চেপে অপশনটি বাদ দিন। 

৭) পিন নম্বর প্রবেশ করান। 

অনলাইনে মেক পেমেন্ট

অনলাইন কেনাকাটার সময়েও উপায় এর সাহায্যে মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন। বর্তমানে বাংলাদেশের বড় বড় সবকয়টি অনলাইন শপেই এই সুবিধা রয়েছে। উপায় এর সাহায্যে অনলাইন পেমেন্ট করতেঃ

১) উপায় এর অনলাইন পেমেন্ট অপশন চালু করুন।

২) নিজের পিন প্রবেশ করিয়ে ‘Go’ বাটনে চাপ দিন।

৩) অ্যাপ মেনু থেকে মার্চেন্ট টাইপ (Merchant Type) নির্ধারণ করুন।  

৪) মার্চেন্ট সাইট থেকে পণ্য নির্ধারণ করুন। 

৫) উপায় কে মূল্য পরিশোধের উৎস হিসেবে নির্ধারণ করুন। 

৬) সমস্ত তথ্য যাচাই করে নিজের পিন প্রবেশ করিয়ে লেনদেন নিশ্চিত করুন। 

উপায় পে বিল 

সাধারণত ক্রেডিট কার্ড থেকেই মোবাইল ব্যাংকিং সেবা গুলোতে টাকা ভরা হয়। সেটাই স্বাভাবিক। কারণ মোবাইল ব্যাংকিং সেবার তুলনায় ক্রেডিট কার্ডই অর্থের বড় ভান্ডার। কিন্তু অনেক সময় সমীকরণটি উলটে যায়। কারণ ক্রেডিট কার্ডের বিল সময় মতো পরিশোধ করতে না পারলে গুণতে হয় মোটা অঙ্কের জরিমানা। তাই উপায় রেখেছে ক্রেডিট কার্ডের বিল পরিশোধের সুযোগ।

অ্যাপের সাহায্যেঃ

ক্রেডিট কার্ডের বিল পরিশোধ করতে উপায় অ্যাপের হোম স্ক্রিনে পে বিল অপশনে ট্যাপ করুন। এখান থেকে প্রয়োজনে বিদ্যুৎ, গ্যাস, পানি, ইন্টারনেট, টেলিফোন এমনকি ক্যাবল টিভির বিল ও দিতে পারবেন। ক্রেডিট কার্ড অপশনটি নির্ধারণ করার পর কোন ব্যাংকের কার্ড তা নির্ধারণ করুন। এরপর ক্লায়েন্ট আইডি (Client ID) প্রবেশ করিয়ে কার্ড নম্বর কত সংখ্যার তা ঠিক করুন। বিলের পরিমাণটি লিখে নিজের পিন নম্বর প্রবেশ করান। সব কিছু ঠিক থাকলে পরিশোধ করে ফেলুন কার্ডের বিল। প্রক্রিয়াটির বিস্তারিত রয়েছে ছবিতেঃ 

উপায়-এ অ্যাপের সাহায্যে বিল পে করার ধাপসমুহঃ ১

উপায়-এ অ্যাপের সাহায্যে বিল পে করার ধাপসমুহঃ ২

উপায়-এ অ্যাপের সাহায্যে বিল পে করার ধাপসমুহঃ ৩

ইউএসএসডির সাহায্যেঃ

১) *২৬৮# ডায়াল করুন। 

২) অপশন ৫ নির্ধারণ করুন। 

৩) ৬ চেপে ক্রেডিট কার্ড নির্ধারণ করুন। 

৪) যেই ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ডের বিল দেবেন সেই ব্যাংকের পাশে থাকা সংখ্যাটি ডায়াল করুন।

৫) ২ এ চাপ দিয়ে ‘মেক পেমেন্ট’ নির্ধারণ করুন।

৬) বিলের মাস প্রবেশ করান। 

৭) ক্রেডিট কার্ডের প্রথম ৬টি সংখ্যা প্রবেশ করান। 

৮) ক্রেডিট কার্ডের শেষ ৪টি সংখ্যা প্রবেশ করান। 

৯) টাকার অংক প্রবেশ করান। 

১০) পিন প্রবেশ করিয়ে লেনদেন সম্পন্ন করুন। 

এছাড়া উপায় এর সাহায্যে তিতাস গ্যাসের বিল দিতে চাইলে তিতাস এর প্রিপেইড কার্ডটি আপনার নিকটস্থ এজেন্টের কাছে নিয়ে যান। এজেন্ট রিচার্জ করে দেবে। 

উপায় অ্যাড মানি 

উপায় এর সাহায্যে যেমন কার্ডের বিল প্রদান করা যায়, ঠিক তেমনি কার্ড থেকেও উপায় এ টাকা আনা যায়। অনেক সময়ই এই সুবিধাটি বেশ কাজে দেয়। কারণ অনেক ছোট খাটো অনলাইন শপিং পেজেই কার্ড থেকে মূল্য পরিশোধের সুযোগ নেই। এছাড়াও হুট হাট দৈনন্দিন জীবনে কার্ডের বদলে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা গুলোই বেশি কাজে আসে। 

অ্যাপের সাহায্যেঃ

কার্ড থেকে উপায় একাউন্টে টাকা আনতে অ্যাড মানি অপশনে ট্যাপ করুন। টাকার অংকটি লিখুন। গো বাটনে ট্যাপ করলেই ৪টি মাধ্যমের সাহায্যে টাকা অ্যাডের উপায় দেখতে পারবেন। ‘Card to Upay’ নির্ধারণ করুন। নতুন কার্ড একাউন্টে সংযুক্ত করতে কার্ড নাম্বার, এক্সপায়েরি ডেট (Expiry Date), সিভিভি নম্বর ও কার্ডের নাম প্রবেশ করাতে হবে। কার্ড সংযুক্ত হলে প্রত্যেক লেনদেনের পূর্বে একটি ওটিপি পাবেন। ওটিপি প্রবেশ করিয়ে টাকা একাউন্টে আনুন। বিস্তারিত ছবিতেঃ

উপায়-এ অ্যাপের সাহায্যে অ্যাড মানি করার ধাপসমুহঃ ১

উপায়-এ অ্যাপের সাহায্যে অ্যাড মানি করার ধাপসমুহঃ ২

উপায়-এ অ্যাপের সাহায্যে অ্যাড মানি করার ধাপসমুহঃ ৩

এছাড়াও আপনার উপায় একাউন্টটির সাথে যদি অন্য কোন একাউন্ট অথবা ক্রেডিট / ডেবিট কার্ড  লিংক করা থাকে থাকে তবে সেখান থেকে টাকা নিজের একাউন্টে আনতে পারবেন সহজেই। কিন্তু উপায় একাউন্টে অ্যাড মানির সেবাটি ইউএসএসডির সাহায্যে গ্রহণ করা যায় না।

উপায় রিকোয়েস্ট মানি

উপায় এর আরেকটি সুবিধাজনক দিক হল এর রিকোয়েস্ট মানি সেবাটি। এর সাহায্যে আপনি সরাসরি অ্যাপ থেকেই পরিচিত কারো কাছে টাকার জন্য অনুরোধ করতে পারেন। কারো কাছে সাহায্য চাইতে অথবা প্রাপ্য টাকা নিশ্চিত ভাবে বুঝে পেতে এই অপশনটি ব্যবহার করা যেতে পারে। 

অনুরোধকারীর প্রেক্ষিতে

সেবাটি ব্যবহার করতে রিকোয়েস্ট মানি অপশনে যান। টাকার অংকটি প্রবেশ করান এবং রেফারেন্স সেকশনে কেন টাকা চাইছেন তা উল্লেখ করতে পারেন। এবার নিজের নম্বরটি প্রবেশ করান। চাইলে অন্যের নম্বর প্রবেশ করিয়ে অন্যের কাছেও টাকা পৌছে দিতে পারেন। অতঃপর পিন প্রবেশ করিয়ে অনুরোধটি নিশ্চিত করুন। 

উপায় (upay) রিকোয়েস্ট মানি করার ধাপসমূহঃ ১

উপায় (upay) রিকোয়েস্ট মানি করার ধাপসমূহঃ ২

প্রেরকের প্রেক্ষিতে

আপনার কাছে যদি কেউ টাকার জন্য অনুরোধ করে তবে উপায় অ্যাপ থেকে আপনি একটি নোটিফিকেশন পাবেন। নোটিফিকেশনটিতে ট্যাপ করে চাইলে আপনি অনুরোধটি গ্রহণ অথবা বর্জন করতে পারেন। গ্রহণ করলে রেফারেন্স হিসেবে কিছু লিখে দিন। চাইলে ক্যাশ আউট চার্জও যুক্ত করে দিতে পারেন। অতঃপর নিজের পিন প্রবেশ করিয়ে স্লাইড করে লেনদেনটি নিশ্চিত করুন। বিস্তারিত জানতে দেখুন ছবি। 

উপায় (upay) রিকোয়েস্ট মানি করার ধাপসমূহঃ ৩

উপায় (upay) রিকোয়েস্ট মানি করার ধাপসমূহঃ ৪

উল্লেখ্য যে, এই সেবাটিও গ্রাহকেরা শুধু উপায় অ্যাপের সাহায্যে গ্রহণ করতে পারবেন। 

বিশেষ মূল্য পরিশোধ 

উপায় এর চৌম্বক অংশ হচ্ছে এর বিশেষ কিছু মূল্য পরিশোধের ব্যবস্থা। যা অনেক মোবাইল ব্যাংকিং সেবাই দিয়ে থাকে না। এমন পাঁচটি বিশেষ মূল্য পরিশোধ সেবা রয়েছে উপায় এ। যার মধ্যে তিনটি সরকারি খাতের সাথে জড়িত ও বাকি দুইটি অনুদানের সাথে সম্পর্কিত।  

ট্রাফিক ফাইন

রাস্তা-ঘাটে চলার সময় অনেকেই ট্রাফিক আইন ভঙ্গ করেন। আর তা যদি ট্রাফিক সার্জেন্টের চোখে পড়ে তবে তো অবশ্যই জরিমানা গুণতে হবে। কিন্তু উপায় এর সাহায্যে সহজেই এই জরিমানা প্রদান করে মামলা ভাঙ্গাতে পারবেন। 

অ্যাপের সাহায্যেঃ

ট্রাফিক আইনে মামলার জরিমানা প্রদান করতে উপায় অ্যাপের ট্রাফিক ফাইন সেকশনে ট্যাপ করুন। ট্রাফিক কেসের আইডি অথবা স্লিপ নংটি প্রবেশ করান। এক্ষেত্রে টাকার পরিমাণ নির্ধারণের প্রয়োজন নেই। মামলা ভেদে তা পূর্ব নির্ধারিত থাকবে। নিজের পিন নম্বরটি প্রবেশ করান। সকল তথ্যাবলী ঠিক থাকলে স্লাইড করে জরিমানা প্রদান করুন।

উপায় অ্যাপের সাহায্যে ট্র্যাফিক ফাইন পরিশোধের ধাপসমুহঃ ১

ইউএসএসডির সাহায্যেঃ 

১) *২৬৮# ডায়াল করুন। 

২) অপশন ৬ নির্ধারণ করুন। 

৩) ১ চাপ দিয়ে ট্রাফিন ফাইন দেবেন তা নিশ্চিত করুন।

৪) মামলার স্লিপ নং প্রবেশ করান। 

৫) পিন প্রবেশ করিয়ে লেনদেন সম্পন্ন করুন।

ইন্ডিয়ান ভিসা 

বাংলাদেশের মোট বিদেশ গমনকারীর মধ্যে ভারতে গমনকারীরই সিংহভাগ। এদেশের বিপুল সংখ্যক মানুষ জীবিকা, চিকিৎসা অথবা নিছক ঘুরতে ভারত গমন করে থাকেন। অন্যান্য দেশের তুলনায় ভারতীয় ভিসা পাওয়াটা বাংলাদেশীদের জন্য বেশ সহজই বলা চলে। সেই প্রক্রিয়াকেই আরো সহজ করতে উপায় এ রয়েছে ইন্ডিয়ান ভিসার বিল দেওয়ার সুযোগ। 

অ্যাপের সাহায্যেঃ

ভারতীয় ভিসার বিল দিতে ইন্ডিয়ান ভিসা অপশনে ট্যাপ করে সেন্টার নির্ধারণ করুন। সেন্টার নির্ধারণের পরে ওয়েব ফাইল নং ও পাসপোর্ট নং প্রবেশ করান। এরপর অ্যাপয়েন্টমেন্ট এর ধরন ঠিক করে নিজের পিনটি প্রবেশ করান। স্লাইড করে লেনদেন সম্পন্ন করুন। বিস্তারিত থাকছে ছবিতেঃ 

উপায়ে ইন্ডিয়ান ভিসার বিল পরিশোধের ধাপসমূহঃ ১ 

উপায়ে ইন্ডিয়ান ভিসার বিল পরিশোধের ধাপসমূহঃ ২

ইউএসএসডির সাহায্যেঃ

১) *২৬৮# ডায়াল করুন। 

২) অপশন ৬ নির্ধারণ করুন।

৩) ২ চেপে ভারতীয় ভিসা পেমেন্ট নির্ধারণ করুন।

৪) সেন্টার নির্ধারণ করুন।

৫) ওয়েব ফাইল নং দিন।

৬) পাসপোর্ট নম্বর দিন।

৭) অ্যাপয়েন্টমেন্ট এর ধরন ঠিক করুন।

৮) ইউএসএসডি মেনুতে সংক্ষেপে সকল তথ্য দেখাবে, তা নিশ্চিত করুন। 

৯) মোবাইল নম্বর প্রবেশ করান। 

১০) পিন প্রবেশ করিয়ে লেনদেন নিশ্চিত করুন। 

মিনিস্ট্রি অফ ল্যান্ড 

উপায় অ্যাপের সাহায্যে জমি সংক্রান্ত কাজেও বিল পরিশোধ করতে পারবেন। জমির কাগজাবলীর একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ হল ই-পর্চা। পুরো প্রক্রিয়াটি ইলেক্ট্রনিক করে ফেলায় বর্তমানে এতে সময় অনেক কম লাগবে। উপায় এর সাহায্যে এর বিলটাও ইলেক্ট্রনিক উপায়তেই দিতে পারবেন। ই-পর্চার বিল পরিশোধ করতে উপায় অ্যাপের মিনিস্ট্রি অফ ল্যান্ড অপশনে ট্যাপ করুন। ই-পর্চা আবেদনের আইডি প্রবেশ করান। এপ্লিকেশন আইডি প্রবেশ করানোর পরেই এপ্লিকেশনের সংশ্লিষ্ট সকল তথ্যাবলী দেখতে পারবেন। নাম, মোবাইল নম্বর, এপ্লিকেশন টাইপ, স্ট্যাটাস ও টাকার পরিমাণ দেখে নিন। সব কিছু ঠিক থাকলে পিন প্রবেশ করিয়ে পরবর্তী ধাপে যান ও স্লাইড করে লেনদেন নিশ্চিত করুন। 

উপায় ডোনেশন

অনলাইনে টাকা আদান প্রদানের চল শুরু হওয়ার পর থেকেই অনেক প্রতিষ্ঠানই অনলাইনে অনুদান গ্রহণ করে থাকে। আর দশটি কাজের মতো দান করাও হয়েছে সহজ। তেমনি উপায় অ্যাপের ডোনেশন সেকশনে রয়েছে কিছু নির্বাচিত প্রতিষ্ঠান। দেশ বরেণ্য এই প্রতিষ্ঠান গুলোতে দান করতে চাইলে প্রয়োজন নেই নম্বর প্রবেশের। তবে উপায় অ্যাপে থাকা এসব প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা সময় ও প্রয়োজন অনুসারে বাড়ে। যেমন বাংলাদেশী জনগণের মজলুম ফিলিস্তিনিদের সহায়তা করার বিপুল আগ্রহের কারণে উপায় অ্যাপে ফিলিস্তিনি দূতাবাসকে ডোনেশন সেকশনের প্রথমেই স্থান দেওয়া হয়েছে।  

নির্বাচিত প্রতিষ্ঠান গুলোকে অনুদান দিতে উপায় অ্যাপের ডোনেশন সেকশনে যান। প্রতিষ্ঠানটি নির্ধারণ করে নিজের নাম, ইমেইল ও টাকার অংক প্রবেশ করান। চাইলে সম্পূর্ণ গোপন ভাবেও অনুদান দিতে পারবেন। অতঃপর নিজের পিনটি প্রবেশ করিয়ে অনুদান সম্পন্ন করুন। নিচে ছবির সাহায্যে পুরো প্রক্রিয়াটি তুলে ধরা হলঃ

উপায়ে ডোনেশনের ধাপসমূহঃ ১

উপায়ে ডোনেশনের ধাপসমূহঃ ২

ডোনেশন সেকশনের সুবিধাটি উপায় গ্রাহকেরা ইউএসএসডির সাহায্যে ভোগ করতে পারবেন না। তবে চাইলে নির্দিষ্ট প্রতিষ্ঠানের উপায় একাউন্ট নম্বর সরবরাহ করে অবশ্যই সেন্ড মানির সাহায্যে অনুদান দিতে পারেন। এছাড়াও যাকাত দেওয়ার জন্যও ব্যবহার করতে পারেন উপায় অ্যাপ। ডোনেশন অপশনের পাশেই রয়েছে যাকাত অপশন। সেখান থেকে হুবুহু ডোনেশন দেওয়ার প্রক্রিয়াতেই যাকাত দিতে পারবেন ডিজিটালি।

উপায় মোবাইল ব্যাংকিং এর অন্যান্য সেবা সমূহ  

উপায় অ্যাপের প্রধান সেবা গুলোর পাশাপাশি রয়েছে আরো কিছু সেবা। বর্তমানে অন্যান্য সেবা সমূহ হিসেবে রয়েছেঃ 

  • ইসলামিক ফাইন্যান্সঃ যা আপনাকে ব্যবসা সম্বন্ধে ইসলামের মাস’আলা, ইসলামী রীতিতে ব্যবসায় বিনিয়োগ, যাকাত এবং ফিতরা সম্পর্কে অবগত হতে সাহায্য করবে।
  • যাকাত ক্যালকুলেটরঃ কত টাকা যাকাত হয় তা হিসাব করতে অনেকেরই বেশ ঝামেলার সম্মুখীন হতে হয়। সেই ঝামেলা কাটাতে এটি হতে পারে বেশ ভাল একটি পন্থা। এই সেবাটি প্রয়োজনে গুগল প্লে স্টোর থেকে একটি আলাদা অ্যাপ নামিয়েও নিতে পারেন। এতে আপনার সকল ক্যাশ টাকার পরিমাণ, স্বর্ণ, রুপা, ব্যবসার টাকা, অংশীদারী কারবার, সম্পত্তি, ঋণ ইত্যাদি সম্পর্কে তথ্য প্রবেশ করিয়ে আপনার সর্বমোট যাকাতের পরিমাণ কতটুকু তা বের করতে পারবেন। 
  • হেলথ (স্বাস্থ্য)ঃ উপায় অ্যাপে রয়েছে স্বাস্থ্য সম্পর্কিত সেবাও। এতে রয়েছে স্বাস্থ্য সম্পর্কিত ভিডিও দেখার ও ব্লগ পড়ার ব্যবস্থা। এছাড়াও আপনার নিকটস্থ ফার্মেসি, হাসপাতাল ও ব্লাড ব্যাংকও খুঁজে পাবেন এখানে। রয়েছে এম্বুলেন্সে কল করার সুবিধাও। এবং এ সকলেরই পেমেন্ট পার্টনার হিসেবে রয়েছে উপায়। 
  • গেমসঃ উপায় অ্যাপে বিনোদনের জন্য রয়েছে কিছু সাধারণ গেমসও। কোথাও আটকা পড়লে সময় কাটাতে যা আপনাকে সাহায্য করবে। 
  • কুইজঃ গেমস থেকে অনেকেই কুইজ এর সঙ্গে সময় কাটাতে বেশি পছন্দ করেন। তাদের কথা মাথায় রেখেই যেন কুইজ অপশন রয়েছে অ্যাপটিতে। এখানে দুই ধরনের কুইজ খেলতে পারবেন। সাধারণ জ্ঞান ভিত্তিক ও ভিজুয়াল পাজল ভিত্তিক। 
  • স্টক নিউজঃ যারা স্টক মার্কেট সম্পর্কে খবর রাখতে পছন্দ করেন তারা সহজেই স্টক নিউজ অপশনে ট্যাপ করে ইউসিবি এর স্টক সাইটে যেতে পারবেন।

এছাড়াও অ্যাপটিতে রয়েছে উপায় এর সাহায্যে করা আপনার সমস্ত লেনদেনের বিস্তারিত। থাকছে মোট ৪টি আলাদা ওয়ালেট ও কোন কোন ক্রেডিট কার্ড এবং একাউন্ট লিংক করা আছে তা রিভিউ করার সুযোগ। উপায় অ্যাপ থেকে যাওয়া সকল নোটিফিকেশনও সংরক্ষিত থাকে অ্যাপটিতে। এছাড়াও সুদৃশ্য অ্যাপটির সাবলীলতা নিঃসন্দেহে তৃপ্তি আনবে ব্যবহারকারীর হৃদয়ে।

উপায়-এর চার্জসমূহ 

প্রত্যেক মোবাইল ব্যাংকিং সেবার মতই উপায়ও অধিকাংশ সেবার জন্য নির্দিষ্ট পরিমাণের চার্জ কেটে থাকে। এ চার্জ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে নিচের ছবিতে চার্টটি ভাল ভাবে দেখার অনুরোধ রইলো। এছাড়াও আপনি যদি ম্যানুয়ালি আপনার লেনদেনের চার্জ হিসাব করতে চান তাহলে উপায় ওয়েবসাইটে চেক করতে পারেন।

উপায় মোবাইল ব্যাংকিং এর চার্জসমূহ

শেষকথা 

বাংলাদেশের মোবাইল ব্যাংকিং সেবার জগতে একদম নতুন এই উপায়। আশা করি উপায় মোবাইল ব্যাংকিং সেবাটি গ্রাহকদের মন জয় করে নেবে খুবই অল্প সময়েই। নতুন হলেও আগের ১০ লক্ষ গ্রাহককে নিখুঁত ভাবে নিয়মিত সেবা দিচ্ছে উপায়। নতুন এই সেবাটির সাথে পরিচয় করিয়ে দিতেই আজকের এই লেখাটি। আশা করি এই লেখাটির মাধ্যমে উপায় মোবাইল ব্যাংকিং সম্পর্কে বেশ বিস্তারিত ধারণা পেয়েছেন।

অনবরত জিজ্ঞাসিত প্রশ্নাবলী

উপায় একাউন্টে সর্বোচ্চ কত টাকা রাখা যায়?

উত্তরঃ উপায় একাউন্টে সর্বোচ্চ ৩ লক্ষ টাকা রাখা যায়। 

উপায় কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগের উপায় কী?

উত্তরঃ উপায় কর্তৃপক্ষের সাথে মোট তিন ভাবে যোগাযোগ করতে পারবেন:

  • ১৬২৬৮ নম্বরে কল করতে পারেন।  
  • info@upaybd.com ইমেইল এ মেইল করতে পারেন। 
  • www.upaybd.com সাইটে প্রবেশ করে ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমে চ্যাট করতে পারেন। 

উপায় কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগের কি নির্দিষ্ট সময় রয়েছে?

উত্তরঃ না। সপ্তাহে ৭ দিন ও দিনের ২৪ ঘন্টাই যোগাযোগ উন্মুক্ত।

উপায় কি নিরাপদ?

উত্তরঃ ব্লকচেইন প্রযুক্তির ব্যবহারে উপায় হয়ে উঠেছে সম্পূর্ণ নিরাপদ।

উপায় একাউন্টের পিন নম্বর ভুলে গেলে কি করণীয়?

উত্তরঃ একাউন্ট রেজিস্ট্রেশনের সময় ব্যবহৃত নম্বর ব্যবহার করে 16268 নম্বরে কল করুন। পরিচয় নিশ্চিতকরণের পরে পিন পরিবর্তন করতে পারবেন। 

 

 

 

তথ্যসূত্র: এই লেখার সকল তথ্য ও ছবি উপায় এর অফিশিয়াল সাইট upaybd.com থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে। 

সর্বশেষ আপডেটের তারিখঃ ০৬/২৪/২০২১

 

রিলেটেড আর্টিকেল গুলো

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button